বিশ্ব সংবাদ

ভারতে সোনার খনি পাওয়ার দাবি নাকচ জিএসআই’র

শেয়ার বিজ ডেস্ক:‘ভারতের উত্তরপ্রদেশের সোনভদ্রতে পাওয়া গেছে তিন হাজার টন সোনার খনি।’ সেখানকার ওই জেলার এক খনন কর্মকর্তার এমন দাবিকে উড়িয়ে দিল জিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া (জিএসআই)। কলকাতায় জিএসআই’র মহাপরিচালক এম শ্রীধর বলেন, ‘জিএসআই’র কোনো ব্যক্তি

এ-জাতীয় কোনো তথ্য দেননি। জিএসআই সোনভদ্রতে এমন কোনো বিশাল স্বর্ণভাণ্ডারের অনুমান করেনি।’ খবর: এনডিটিভি।

তিনি বলেন, ‘পর্যবেক্ষণ করার পরে আমরা আকরিকের উৎস সম্পর্কে আমাদের রাজ্য ইউনিটগুলোর সঙ্গে আলোচনা করি। আমরা ১৯৯৮-৯৯ ও ১৯৯৯-২০০০ সালে এই অঞ্চলে কাজ করেছি। তথ্য ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের রিপোর্ট উত্তরপ্রদেশের ডিজিএমের কাছে পৌঁছেও দেওয়া হয়েছিল।’ শ্রীধর জানান, সোনার অনুসন্ধানের রিপোর্ট সন্তোষজনক নয়। এমন কোনো ফলাফল মেলেনি, যা থেকে বিরাট স্বর্ণভাণ্ডারের কোনো অনুমান করা যায়।

প্রসঙ্গত, জেলার খনন কর্মকর্তা কে কে রায় গত শুক্রবার জানিয়েছিলেন, জেলার সোনপাহাড়ি ও হারদি এলাকায় প্রায় তিন হাজার টন সোনার উৎস শনাক্ত করা হয়েছে। তিনি জানান, সোনপাহাড়িতে ভূগর্ভস্থ প্রায় দুই হাজার ৯৪৩ দশমিক ২৬ টন এবং হারদি ব্লকে প্রায় ছয় হাজার ৪৮৬ দশমিক ১৬ কেজি সোনা রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সব মিলিয়ে ভারতে বিরাট এক সোনার খনি মিলেছে বলে খবর প্রকাশিত হয়, যেখানে প্রায় তিন হাজার ৫০০ টন সোনা মজুত রয়েছে। তবে পরে শ্রীধর এই দাবিকে নাকচ করে দেন। তার দাবি, সোনপাহাড়ির সাব-ব্লক এইচে ১৭০ মিটার দীর্ঘ এলাকায় তিন দশমিক শূন্য তিন গ্রাম প্রতি টন সোনাসহ ৫২ হাজার ৮০৬ দশমিক ২৫ টনের সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, তিন দশমিক শূন্য তিন প্রতি টন সোনার খনিজ ক্ষেত্রটি এখনও নির্ণীত নয়। মোট ৫২ হাজার ৮০৬ দশমিক ২৫ টনের মধ্যে মোট সোনার পরিমাণ তিন হাজার ৩৫০ টন নয়, ১৬০ কিলোগ্রাম।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..