বিশ্ব সংবাদ

ভারতে ৮০ শহর লকডাউন যাত্রীবাহী সব যান চলাচল বন্ধ

শেয়ার বিজ ডেস্ক: করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় ভারতের দিল্লি, মুম্বাই, কলকাতা, চব্বিশপরগনা, চেন্নাই, বেঙ্গালুরুসহ ৮০ শহর লকডাউন করা হয়েছে। আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত সব ধরনের যাত্রীবাহী যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। খবর: এনডিটিভি।

যেসব রাজ্যে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েছে, মূলত সেসব রাজ্যসহ অন্যান্য রাজ্য অবরুদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এখন পর্যন্ত মহারাষ্ট্র, কেরালা, দিল্লি, গুজরাট, উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা, কর্নাটক, তেলেঙ্গানা, রাজস্থান, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়, পাঞ্জাব, জম্মু-কাশ্মীর, লাদাখ, পশ্চিমবঙ্গ, চণ্ডীগড়, ছত্তিশগড়, হিমাচল প্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, ওড়িষ্যা, পুদুচেরি ও উত্তরাখণ্ডে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েছে।

দেশজুড়ে ট্রেন, মেট্রো সেবা ও অভ্যন্তরীণ বাস চলাচল বাতিল করা হয়েছে। একই সঙ্গে অনেক রাজ্যেই ইতোমধ্যেই মার্কেট, শপিংমল, সিনেমা হল, স্কুল-কলেজ ও জিম বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। অনেক স্থানেই ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। অর্থাৎ, একসঙ্গে পাঁচজনের বেশি কোথাও জড়ো হতে পারবে না।

ভারতে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৪২৫ এবং প্রাণ হারিয়েছেন আটজন। দেশটিতে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ২৯ এবং নতুন করে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে।

গত রোববার মন্ত্রিসভার এক বৈঠকের পরই লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এরপরই লকডাউন করা শহরগুলোর তালিকা প্রকাশ করা হয়। রাজধানী দিল্লিতে সব মার্কেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। দিল্লির সঙ্গে সব সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল গতকাল সোমবার সকাল ৬টা  থেকে আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত দিল্লি লকডাউন ঘোষণা করেছেন। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, দিল্লির সঙ্গে সব ধরনের বিমান চলাচলও বন্ধ থাকবে।

লকডাউনের সময় কোনো ক্যাব, টেক্সি, অটোরিকশা রাজধানীতে চলাচল করতে পারবে না। একইভাবে সব ধরনের ব্যক্তিগত যান চলাচলেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। তবে জরুরি সহায়তা কাজে নিয়োজিত, যেমন: পুলিশ, স্বাস্থ্য বিভাগ, দমকল, কারাগার, বিদ্যুৎ, পানি ও পেট্রোল পাম্পের যানবাহন এ আওতার বাইরে থাকবে।

অপরদিকে, কর্নাটকের প্রশাসন বলছে, মুদিদোকান, দুধ, খাবার, মাছ-মাংসসহ খাবারের সব দোকান খোলা রাখার অনুমতি দেওয়া হবে। তেলেঙ্গানার সীমান্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সব ধরনের গণপরিবহনও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। অপরদিকে পর্যটক বাস ও পর্যটকদের চলাফেরা নিষিদ্ধ করেছে গোয়া।

আগে নীতিনির্ধারকরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, দেশের যে ৭৫ জেলায় করোনা সংক্রমিত ব্যক্তিকে পাওয়া গেছে, সেগুলো লকডাউন করে দেওয়া হবে। এরই ধারাবাহিকতায় পশ্চিমবঙ্গ সরকার কলকাতা ও লাগোয়া বিধাননগর এবং নিউটাউন, হাওড়াসহ সবকটি পৌরশহরকে লকডাউন করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এর এক দিন পরই দেশটির ৮০ শহর লকডাউন হলো।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..