মার্কেটওয়াচ

ভালো কোম্পানির অভাবে বাজার সম্প্রসারিত হচ্ছে না

পুঁজিবাজারে ছোট, বড় বা প্রাতিষ্ঠানিক সব বিনিয়োগকারী আসেন মুনাফার আশায়। কিন্তু আমাদের পুঁজিবাজার এখনও প্রকৃত অর্থে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের স্থান হয়ে উঠতে পারেনি। কারণ এখানে সবারই স্বল্পমেয়াদি বিনিয়োগের প্রবণতা। তাই সাধারণ বিনিয়োগকারীদের এখানে সাবধানে পা ফেলতে হবে। বাজারে যারা প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারবে, তারা ভালো করবে। কিন্তু ভালো কোম্পানির অভাবে বাজার সম্প্রসারিত হতে পারছে না। বিনিয়োগকারীরাও বিনিয়োগ করার মতো শেয়ার পাচ্ছেন না। গতকাল এনটিভির মার্কেট ওয়াচ অনুষ্ঠানে বিষয়টি আলোচিত হয়। হাসিব হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আলোচক ছিলেন অর্থনীতি ও পুঁজিবাজার বিশ্লেষক আকতার হোসেন সান্নামত এবং এমডি, বিএমএসএল ইনভেস্টমেন্ট ও ইসি মেম্বার মো. রিয়াদ মতিন।

আকতার হোসেন সান্নামত বলেন, ২০১৫-১৭ সালে পুঁজিবাজারে মৌলিক কোনো পরিবর্তন আসেনি। বাজারে অনেক ব্যক্তি বিনিয়োগকারী আছেন, যারা প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের চেয়েও বড়। এখানে প্রাতিষ্ঠানিক ও ব্যক্তি উভয়েই কিন্তু বিনিয়োগকারী। সবাই আসেন মুনাফা অর্জনের আশায় এবং তা ডিভিডেন্ড বা ক্যাপিটাল গেইন যেকোনোটিই হতে পারে। অনুসন্ধানে দেখা যায়, আমাদের বাজারে অধিকাংশ ব্যক্তি বিনিয়োগকারী খুবই স্বল্প সময়ের জন্য বিনিয়োগ করেন। বিনিয়োগ বলতে যা বোঝায়, তা আসলে কেউই করেন না। মূলত তারা শেয়ার কিনে এক থেকে তিন দিনের জন্য। এ তিন দিনে কতটুকু লাভ হচ্ছে সে হিসাবে শেয়ার কেনাবেচা করেন। আর এ মনোভাবের কারণেই দীর্ঘ সময়ের বিনিয়োগের সুবিধা থেকে তারা বঞ্চিত হচ্ছেন। ইদানীং আবার প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের মধ্যেও এমন আচরণ লক্ষ করা যাচ্ছে। পুঁজিবাজার এখনও অনুসন্ধানভিত্তিক বাজার হিসেবে গড়ে ওঠেনি এবং এটি যথাযথ বাজার নয়। তাই সাধারণ বিনিয়োগকারীদের এখানে সাবধানে পা ফেলতে হবে। এর জন্য তথ্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বাজারে যারা প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারছেন, তারা কিন্তু ভালোই করছেন। কাজেই বাজারের তথ্য, কোম্পানির প্রবৃদ্ধি, সেক্টর, বোর্ড, ব্যবস্থাপনাসহ সবকিছু  যদি নখদর্পণে না থাকে তাহলে দেশের পুঁজিবাজারের যে আচরণ তাতে মুনাফা করা কঠিন হয়ে পড়বে। তাছাড়া ভালো কোম্পানির অভাবে বাজার সম্প্রসারিত হতে পারছে না। বিনিয়োগকারীরাও বিনিয়োগ করার মতো শেয়ার পাচ্ছেন না। ভালো কোম্পানিগুলোকে বিভিন্নভাবে বুঝিয়ে শুনিয়ে নানা সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার মাধ্যমে বাজারে আসার আগ্রহ তৈরি করতে হবে। তারা কী কারণে তালিকাভুক্ত হচ্ছে না, তা চিহ্নিত করে সমাধান খুঁজে বের করতে হবে।

মো. রিয়াদ মতিন বলেন, প্রকৃতপক্ষে গত দুই বছরে মার্চেন্ট ব্যাংকার অ্যাসোসিয়েশন একটি অবস্থানে এসেছে। এর আগে যারা দায়িত্বে ছিলেন তারাও ভালো কাজ করেছেন। কিন্তু গত দুই বছরের চেষ্টায় আমরা একটি অবস্থায় আসতে পেরেছি। এর পেছনে বিশেষ করে আমাদের প্রেসিডেন্ট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক তৈরি করার ক্ষেত্রেও তার অবদান অনেক। সবদিক বিবেচনায় বাজারের উন্নয়নে কিছুটা হলেও মার্চেন্ট ব্যাংক অ্যাসোসিয়েশন পদক্ষেপ নিয়েছে। আমরা সেমিনার করেছি, বাজারে অর্থমন্ত্রীকে এনেছি এবং আগামী ২০ তারিখেও একটি বড় প্রোগ্রাম (কর্মসূচি) আছে। সেখানে দেশের বড় ব্যবসায়ীরা কেন পুঁজিবাজারে আগ্রহী হচ্ছেন না বা না আসার ব্যাপারে তাদের মতামত কী, তা জানার চেষ্টা করব। ভালো কোম্পানিগুলো কেন বাজারে তালিকাভুক্ত হচ্ছে না, সে বিষয়ে আলোচনা করা হবে।

 

শ্রুতি লিখন: রাহাতুল ইসলাম

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..