মার্কেটওয়াচ

ভালো শেয়ার বেছে নিয়ে মন্দটি পরিত্যাগ করতে হবে

পুঁজিবাজার হচ্ছে তথ্যনির্ভর বাজার। বাজার সম্পর্কে যার যত বেশি তথ্য জানা থাকবে, সে তত বেশি লাভবান হবেন। কোনো কোম্পানির শেয়ার কেনার আগে অবশ্যই তথ্য যাচাই-বাছাই করে কিনতে হবে। নতুন একটি কোম্পানি বাজারে এলেই যাচাই-বাছাই না করে সেই কোম্পানির শেয়ার কেনার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়াটা ঠিক নয়। বাজারে ভালো-মন্দ দুই ধরনের কোম্পানিই থাকে। তাই ভালোটা বেছে নিতে হবে আর মন্দটা পরিত্যাগ করতে হবে। গতকাল এনটিভির মার্কেট ওয়াচ অনুষ্ঠানে বিষয়টি আলোচিত হয়।

খুজিস্তা নুর-ই-নাহারিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র সাংবাদিক ফজলুল বারী এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সহকারী অধ্যাপক মো. সালাউদ্দীন চৌধুরী, এফসিএ।

ফজলুল বারী বলেন, দীর্ঘ পতনের পর সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় বাজারের জন্য কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয়। এরপর থেকেই বাজার একটু ঘুরে দাঁড়ায়। টানা কয়েকদিন লেনদেনের পাশাপাশি সূচকও বাড়ে। বিনিয়োগকারীরাও পুঁজিবাজারে আসতে শুরু করে। হাজার কোটি টাকার লেনদেনও হয়। কিন্তু ফের বাজারে সূচক ও লেনদেন কমতে শুরু করেছে। আমরা আগেও বলেছি এবং এখনও বলছি, পুঁজিবাজার হচ্ছে আস্থার জায়গা। এখানে আস্থার বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ। যদি বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি হয় তাহলে আস্থার বিষয়টি এমনিতেই চলে আসবে।

তিনি আরও বলেন, প্রবাদ বাক্য আছে, কয়লা ধুইলে ময়লা যায় না, আর চোর না শুনে ধর্মের কাহিনি। আসলে দুর্নীতিবাজরা এসব কানে নেয় না। যারা বাজার পরিচালনা করেন তারা সবাই জানেন, বাজারে দুর্বল কোম্পানির আইপিও আনার প্রতিযোগিতা চলছে। যেদিন এক হাজার কোটি টাকা লেনদেন ছাড়াল সেই মূহূর্তেই একটি দুর্বল আইপিও অনুমোদন দিল। এ সময়ে এটা অনুমোদন দেওয়া ঠিক হয়নি। একটি ভালো ইস্যু বাজারে অনেক নতুন বিনিয়োগকারী আনে। তাই বাজারে ভালো ইস্যু আনতে হবে। শুধু আনলেই হবে না এটার প্রচার-প্রচারনা চালাতে হবে। ভালো ইস্যু না আনলে নতুন বিনিয়োগকারী আসবেন না। বাজারের প্রায় ৮০ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ করে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী। কিন্তু সে অনুযায়ী তারা দায়িত্ব পালন করছে না। এখানেই বড় সমস্যা রয়েছে।

মো. সালাউদ্দীন চৌধুরী বলেন, বাজার দুদিন বাড়লেই বলা হয় অতিমূল্যয়িত হয়েছেÑএটাই আমাদের বাজারের বড় সমস্যা। দীর্ঘদিন ধরে বাজার খারাপ অবস্থানে ছিল সেটা নিয়ে কোনো আলোচনা হচ্ছে না। তাই ভেবে-চিন্তে কথা বলা উচিত। গত ১০ বছরে বাজার থেকে অনেক বিনিয়োগকারী চলে গেছে। আর বিনিয়োগকারী চলে যাওয়াটাই স্বাভাবিক। বছরের পর বছর বিনিয়োগকারী লোকসান করে যাচ্ছে। ন্যূনতম হলেও কোনো লাভ করতে পারছে না। তাহলে কী দেখে বাজারে বিনিযোগকারী আসবেন। এখন বাজারে সে পরিবেশ নেই। যদি টানা কয়েক বছর বিনিয়োগকারীরা লাভ করতে না পারেন সেক্ষেত্রে বিনিয়োগকারী আসবেন না।

বিনিয়োগকারীর উদ্দেশ্য তিনি বলেন, পুঁজিবাজার হচ্ছে তথ্যনির্ভর বাজার। যার যত বাজার সম্পর্কে তথ্য বেশি জানা থাকবে সে তত বেশি লাভবান হবেন। আসলে বেশিরভাগ বিনিয়োগকারী বাজার সম্পর্কে তেমন তথ্য জানেন না। তাই কোনো কোম্পানির শেয়ার কেনার আগে অবশ্যই তথ্য যাচাই-বাছাই করে কিনতে হবে। নতুন একটি কোম্পানি বাজারে এলো আর যাচাই-বাছাই না করেই সেই কোম্পানির শেয়ার কেনার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়লামÑএটা ঠিক নয়। কারণ বাজারে ভালো মন্দ দুই ধরনের কোম্পানিই থাকে। তাই ভালোটা বেছে নিতে হবে আর মন্দটা পরিত্যাগ করতে হবে।

শ্রুতিলিখন: শিপন আহমেদ

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..