প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

ভূঞাপুরে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতিসহ নবজাতকের মৃত্যু

তদন্ত কমিটি গঠন

প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে ‘মা ক্লিনিক অ্যান্ড হাসপাতালে’ ভুল চিকিৎসায় প্রসূতিসহ নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। গত বুধবার রাতে ভূঞাপুর বাজারস্থ অনুমোদনহীন মা ক্লিনিক অ্যান্ড হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর ক্লিনিকের মালিক, চিকিৎসক ও নার্সরা পালিয়ে গেছেন।

মৃত প্রসূতি লাইলী বেগম (৩০) উপজেলার গোবিন্দাসী ইউনিয়নের খানুরবাড়ি গ্রামের আতোয়ার হোসেনের স্ত্রী। এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, লাইলী বেগমের প্রসবব্যথা শুরু হলে স্বজনরা ভূঞাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে কর্মরত চিকিৎসক রোগীকে টাঙ্গাইলে রেফার করেন। এ সময় সেখানে থাকা ক্লিনিকের দালাল শামছুর খপ্পরে পড়েন রোগীর স্বজনরা। দালালের কথামতো মা ক্লিনিক অ্যান্ড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর তাকে ক্লিনিকের অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যান চিকিৎসক ও নার্সরা। ক্লিনিকের সার্জারি চিকিৎসক ও ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার এনামুল হক সোহেল ও অ্যানেসথেসিয়ার চিকিৎসক আল মামুন অপারেশন শুরু করেন। একপর্যায়ে রোগী অপারেশন টেবিলেই মারা যান। পরে ঘটনাটি ধামা চাপা দিতে স্বজনদের না জানিয়ে লাশ অ্যাম্বুলেন্সে উঠিয়ে টাঙ্গাইলে পাঠিয়ে দেয়ার সময় স্বজন ও স্থানীয়রা বাধা দেন।

স্বজনরা জানান, প্রসবব্যথা শুরু হলে লাইলীকে সরকারি হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে দালালের খপ্পরে পড়ে ক্লিনিকে আনা হয়। সেখানে চিকিৎসকরা প্রায় দুই ঘণ্টা তাকে অপারেশন থিয়েটারে রাখেন। রোগী মারা গেলে ক্লিনিকের সামনে রেখে চিকিৎসক, নার্স ও মালিক পালিয়ে যান।

ভূঞাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. আল মামুন বলেন, মা ক্লিনিকে আনার পর প্রসূতির উচ্চ রক্তচাপ দেখা দেয়। সিজারিয়ান অপারেশনের আগেই রোগী মারা যান।’

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আব্দুস সোবহান বলেন, ‘সরকারি হাসপাতালের কোনো চিকিৎসক জড়িত থাকলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

জেলা সিভিল সার্জন ডা. আবুল ফজল মো. সাহাবুদ্দিন খান বলেন, ‘ঘটনাটি তদন্তে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাইনি কনসালট্যান্ট ডা. ফারহানা পারভীনকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে আগামী সাত কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া ওই ক্লিনিক পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’