খবর

ভূ-গর্ভস্থ পানির ওপর চাপ কমানোর তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর

শেয়ার বিজ ডেস্ক : দেশের মানুষের কাছে সুপেয় পানি পৌঁছে দিতে ভূ-গর্ভস্থ পানির ওপর চাপ কমিয়ে মাটির ওপরের পানির ব্যবহার বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এক অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে এ বিষয়ে কথা বলেন সরকারপ্রধান।

তিনি বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য আমাদের দেশের মানুষকে সুপেয় পানি দিতে হবে। কিন্তু আমাদের ভূ-উপরস্থ পানি ব্যবহার করতে হবে। আমাদের সেচের পানি বা ব্যবহারের পানির জন্য ভূ-গর্ভস্থ পানির পরিবর্তে আমরা যেন ভূ-উপরস্থ পানি ব্যবহার করতে পারি, সেদিকে আমরা বিশেষ দৃষ্টি দিই।’ সূত্র: বিডি নিউজ

ভার্চুয়াল এ অনুষ্ঠানে পানি ভবন, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের সামনে নির্মিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘ম্যুরাল’ এবং বিমানবন্দরের অভ্যন্তরে ‘বঙ্গবন্ধু কর্নার’, বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের নবনির্মিত প্রধান কার্যালয় ‘পর্যটন ভবন’ এবং সিলেটের ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সম্প্রসারণ (প্রথম পর্যায়) প্রকল্পের নির্মাণকাজ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। দেশে যেন পানির সমস্যা না হয়, সেজন্য সরকারের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরার পাশাপাশি আইন করার কথাও অনুষ্ঠানে বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘যে পানির জন্য এক সময় হাহাকার ছিল, সেই হাহাকারটা যেন বন্ধ হয়। পাশাপাশি সারা বাংলাদেশে যত খাল, বিল, হাওর, পুকুর, নদী যা আছে সবগুলোতে যাতে নাব্যতা থাকে সেগুলো খনন করে পানি ধারণক্ষমতা বাড়ানো। তাতে দুটি কাজ হবে। একটা হচ্ছে আমাদের জীববৈচিত্র্য রক্ষা হবে, প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা হবে, আবার মৎস্য উৎপাদন বাড়বে। মানুষের চহিদাটাও আমরা পূরণ করতে পারব। সেদিকে লক্ষ্য রেখে বিভিন্ন পরিকল্পনা আমরা হাতে নিয়ে সেগুলো আমরা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি।’

সেই সঙ্গে গবেষণার গুরুত্ব তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি এটা সব সময় বিশ্বাস করি যে গবেষণা ছাড়া কোনো কাজেই উৎকর্ষতা সম্ভব না। দুর্ভাগ্যের বিষয় হলো ১৯৯৬ সালে যখন সরকার গঠন করি, তখন দেখেছিলাম আমাদের গবেষণায় কোনো বিশেষ বরাদ্দই রাখা হতো না, সরকারের পক্ষ থেকে কোনো উদ্যোগ] ছিল না এবং কোনো রকম প্রণোদনা দেওয়া হতো না।’ 

সেই অবস্থা থেকে এখন দেশের প্রতিটি নদীতে ড্রেজিং করার পদক্ষেপ নেওয়ার কথা অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন সরকারপ্রধান।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..