দিনের খবর প্রচ্ছদ শেষ পাতা

ভোজ্যতেলের দাম কমানোর ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক: মিলগেটে খোলা ভোজ্যতেলের দাম দুই টাকা কমানোর ঘোষণা দিয়েছে পরিশোধনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো। গতকাল বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশির সঙ্গে এক বৈঠক শেষে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

নতুন মূল্য অনুযায়ী, মিলগেটে খোলা সয়াবিন তেল ৯০ টাকা ও পাম তেল ৮০ টাকা দরে বিক্রি করা হবে। তবে এ দরটি কেজি না লিটারে, তা নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশন বলছে, দরটি হবে কেজিতে। ব্যবসায়ীদের দাবি, তারা লিটারের বিষয়ে সম্মত হয়েছেন। বাজারে খোলা ভোজ্যতেল বিক্রি হয় কেজিতে এবং বোতলজাত ভোজ্যতেল লিটারে। ফলে দাম কমানোর বিষয়টি লিটার না কেজি তা নিয়ে স্পষ্ট নয়।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে সভা শেষে তিনটি কোম্পানির প্রতিনিধি বলেন, তারা লিটারে ৯০ টাকার বিষয়ে আলোচনা করে এসেছেন। ট্যারিফ কমিশনের সদস্য শাহ মো. আবু রায়হান আলবেরুণী বলেন, দাম হবে কেজিতে। রাষ্ট্রায়ত্ত বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) হিসাবে, রাজধানীতে খুচরা বাজারে এখন খোলা সয়াবিন প্রতি লিটার ৯২ থেকে ৯৭ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে, যা এক বছর আগের তুলনায় লিটারপ্রতি ১২ থেকে ১৫ টাকা বেশি।

পুরান ঢাকার মৌলভীবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা জানান, গতকাল সেখানে খোলা সয়াবিন তেলের সরবরাহ আদেশ (এসও) লেনদেন হচ্ছে লিটারপ্রতি ৮৪ থেকে ৮৫ টাকার মধ্যে। সাধারণ মানুষ বেশি কেনে বোতলের তেল। সেখানে কোনো প্রভাব পড়বে না। দেশে গত কয়েক মাসে ভোজ্যতেলের দাম ব্যাপকভাবে বেড়েছে। ব্যবসায়ীরা এজন্য আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্যবৃদ্ধিকে দায়ী করছিলেন।

টিসিবির হিসাবে, বাজারে এখন পাম তেলের দাম লিটারপ্রতি ৮২ থেকে ৮৪ টাকা। এক বছর আগে যা ৫৮ থেকে ৬৫ টাকার মধ্যে ছিল।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..