প্রথম পাতা

মধ্যপাড়া খনির এমডি অপসারণ

প্রতিনিধি, দিনাজপুর

দায়িত্ব নেওয়ার তিন মাসের মধ্যে বদলি করা হয়েছে দিনাজপুরের মধ্যপাড়া পাথরখনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ফজলুর রহমানকে। শ্রমিক অসন্তোষের মধ্যে তাকে গতকাল বদলি করা হলো।

সেখানে নতুন এমডি হিসেবে পেট্রোবাংলার মহাব্যবস্থাপক এবিএম কামরুজ্জামানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। নতুন এমডি গতকাল বৃহস্পতিবার দায়িত্ব নিয়েছেন।

এবিএম কামরুজ্জামান এর আগে বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি ও মধ্যপাড়া গ্রানাইট মাইনিং কোম্পানিতে মহাব্যবস্থাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। বিদায়ী এমডি ফজলুর রহমানকে এবিএম কামরুজ্জামানের পেট্রোবাংলার মহাব্যবস্থাপক হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

এদিকে দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিক নিয়োগের দাবিতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করেছেন স্থানীয় বাসিন্দা ও স্থানীয় শ্রমিকরা। গতকাল সকাল ১০টায় বড়পুকুরিয়া বাজার থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র এলাকা প্রদক্ষিণ করে। পরে তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রধান ফটকের সামনে ফুলবাড়ী-পার্বতীপুর সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে তারা এক ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন করে।

বড়পুকুরিয়া শ্রমিক অধিকার আন্দোলনের সভাপতি হাবিবুর রহমান বলেন, ‘বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রে তৃতীয় পক্ষের অধীনে শ্রমিক নিয়োগের জন্য বারবার দরপত্র আহ্বান করা হলেও অদৃশ্য কারণে শ্রমিক নিয়োগ না করে দরপত্র স্থগিত করা হয়। এতে তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রটিতে দীর্ঘদিন থেকে শ্রমিক নিয়োগ বন্ধ রয়েছে। ফলে স্থানীয় শ্রমিকরা কাজ না পেয়ে এখন মানবেতর জীবনযাপন করছে।’

শ্রমিক অধিকার আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ বলেন, ‘আগামী চার দিনের মধ্যে শ্রমিক নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু না করলে আরও কঠোর আন্দোলন কর্মসূচির মাধ্যমে শ্রমিক নিয়োগ করতে বাধ্য করা হবে।’

উল্লেখ্য, বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রে স্থানীয় ও অভিজ্ঞ শ্রমিক নিয়োগের দাবিতে দীর্ঘদিন থেকে আন্দোলন করে আসছে স্থানীয় বাসিন্দা ও বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের শ্রমিক অধিকার আন্দোলন কমিটি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের উপপ্রধান প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘শ্রমিক নিয়োগকে কেন্দ্র করে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। এতে তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হওয়ায় গত জুন মাসে তাপ বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ শ্রমিক নিয়োগ দরপত্র স্থগিত করে। এরপর আর দরপত্র আহ্বান করা হয়নি। শ্রমিকের প্রয়োজন হলে আবারও দরপত্র আহ্বান করা হবে।’ c

সর্বশেষ..