মহাকাশে হেঁটে অ্যানটেনা বদলালেন নাসার দুই নভোচারী

শেয়ার বিজ ডেস্ক: মহাকাশে হেঁটে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনের একটি অ্যানটেনার পরিবর্তন করলেন যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার দুই নভোচারী। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার প্রায় সাড়ে ছয় ঘণ্টার চেষ্টায় কাজটি করেছেন তারা। নাসার এ অভিযানের মধ্য দিয়ে একটি এসব্যান্ড রেডিও কমিউনিকেশন অ্যানটেনা পরিবর্তন করা হয়। খবর: রয়টার্স।

যে দুই নভোচারী অ্যানটেনার পরিবর্তনে কাজ করেছেন, তারা হলেন থমাস মার্শবার্ন ও কায়লা ব্যারন। নাসা বলেছে, খানিকটা ঝুঁকি নিয়ে এ অভিযান সম্পন্ন করা হয়েছে, কারণ সপ্তাহখানেক আগে রাশিয়া মহাকাশে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছিল। এর ধ্বংসাবশেষ কক্ষপথে ছিল।

৬১ বছর বয়সী থমাস মার্শবার্নের জন্য মহাকাশে হাঁটার ঘটনা নতুন নয়। এর আগেও তিনি চারবার মহাকাশে হেঁটেছেন। তিনি পেশায় চিকিৎসক। এরপর দুটি কক্ষপথ ভ্রমণে তিনি ফ্লাইট সার্জন ছিলেন।

তবে ৩৪ বছর বয়সী ব্যারনের কাছে মহাকাশে হাঁটার অভিজ্ঞতা এটাই প্রথম। তিনি ছিলেন মার্কিন নৌবাহিনীর সাবমেরিন অফিসার। অভিযান শেষে ব্যারন বলেন, অভিজ্ঞতাটা ছিল অসাধারণ।

নাসার এ অভিযানের মধ্য দিয়ে একটি এসব্যান্ড রেডিও কমিউনিকেশন অ্যানটেনা পরিবর্তন করা হয়। এটির বয়স ২০ বছরের বেশি। যে অ্যানটেনা নতুন করে স্থাপন করা হয়েছে, সেটি মহাকাশ স্টেশনেই ছিল। যোগাযোগসংক্রান্ত যে জটিলতা তৈরি হয়েছিল, তা আর থাকবে না নতুন অ্যানটেনা স্থাপনের ফলে।

কাজটি করার জন্য মহাকাশ স্টেশনে গিয়েছিলেন চার নভোচারী। বাকি দুজনের একজন হলেন ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সির ম্যাথিয়াস মওরার। তিনি জার্মানির নভোচারী। আরেকজন হলেন নাসার রাজা চারি।

এ চারজন গত ১১ নভেম্বর সেখানে গিয়েছিলেন। তাদের জন্য বাহন ছিল টেসলা কোম্পানির ‘স্পেসএক্স ক্রু ড্রাগন’। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে এটি উৎক্ষেপণ করা হয়েছিল। কিন্তু এর চার দিন পর স্যাটেলাইটবিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায় রাশিয়া। এ নিয়ে কোনো সতর্কবার্তা দেয়া হয়নি। ফলে অভিযান পিছিয়ে যায় নাসার নভোচারীদের। এরপর বৃহস্পতিবার সেই অভিযান পরিচালনা করা হলো।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন   ❑ পড়েছেন  ৯১২০  জন  

সর্বশেষ..