প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

মহেশখালীতে গুদাম থেকে দুই হাজার নতুন বই উদ্ধার

প্রতিনিধি, কক্সবাজার:কক্সবাজারের বড় মহেশখালী ইউনিয়নের মিয়াজির পাড়ার ছিদ্দিকের ভাঙারির দোকান (গুদামঘর) থেকে চলতি শিক্ষাবর্ষের বিনা মূল্যে দুই হাজার কপি মাধ্যমিক পর্যায়ের নতুন বই উদ্ধার করেছেন পুলিশ। গতকাল দুপুরে মহেশখালী থানার ওসি মো. আবদুল হাইয়ের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ছিদ্দিকের দোকান থেকে এসব বই উদ্ধার করে।

মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুল হাই শেয়ার বিজকে জানান, শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনা মূল্যে বিতরণের সরকারি বই বিক্রি করাটা খুবই দুঃখজনক। বইগুলো পুলিশ জব্দ করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, প্রাথমিক তথ্য অনুযায়ী, রুবেল নামে এক ভাঙারিওয়ালার নাম পাওয়া গেছে। পরবর্তী অনুসন্ধান ও আইনি উদ্যোগ নেয়া হবে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, রুবেল নামের একজন খুচরা ভাঙারি বিক্রেতা বইগুলো বিক্রি করার জন্য ওই দোকানের মালিকের কাছে নিয়ে আসে। নতুন বই দেখে দোকান মালিক ও ভাঙারি ব্যবসায়ির সন্দেহ হলে বিষয়টি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ মো. সোলেমান ও লুৎফুর রহমানকে জানান। তারা ওই দোকানে গিয়ে বিপুল নতুন বইয়ের মজুত দেখতে পান। মজুত বইগুলো ২০২২ সালের চলতি শিক্ষাবর্ষের মাদরাসা শিক্ষার্থীদের।

জানা গেছে, বড় মহেশখালী বড় কুলাল পাড়া গ্রামের মনজুর আহমদের ছেলে রুবেল এসব বই বিক্রি করে। বইগুলো লিডারশিপ কলেজে রাখা সরকারি গুদাম থেকে একটি সিন্ডিকেটের মাধ্যমে সংগ্রহ করেছে। এ সিন্ডিকেটটি ইতোমধ্যে অনেক বই অন্যত্র বিক্রি করেছে। এতে গুদামে দায়িত্বরতরা জড়িত বলেও জানা যায়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মহেশখালী উপজেলা শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপারভাইজার ফজলুল করিম শেয়ার বিজকে বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে জড়িতদের বিরুদ্ধে প্রাতিষ্ঠানিক ও আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।