প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

মাছ ধরার সময় বজ্রপাতে দুই জেলে নিহত

নরসিংদী জেলা-যুগান্তর

প্রতিনিধি, নরসিংদী : নরসিংদীর মেঘনা নদীতে মাছ ধরার সময় বজ্রপাতে নিকুঞ্জ দাস (৪৫) ও সুমন দাস (২৫) নামে দুই জেলে মারা গেছেন। গতকাল সোমবার দুপুরে শহর সংলগ্ন হাজীপুর এলাকার মেঘনা নদীতে এ বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।

নিহত নিকুঞ্জ দাস সদর উপজেলার হাজীপুর নয়াপাড়া এলাকার মৃত মতি লাল দাসের ছেলে ও সুমন দাস একই এলাকার ধিরাই চন্দ্র দাসের ছেলে।

হাজীপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইউসুফ খান পিন্টু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ইউপি চেয়ারম্যান ও পরিবারের সদস্যরা জানান, হাজীপুর এলাকার নিকুঞ্জ দাসসহ চার জেলে প্রতিদিনের মতো সকালে মেঘনা নদীতে মাছ ধরতে যায়। দুপুরে হঠাৎ প্রচ- বৃষ্টি শুরু হলে তারা নৌকাটি একটি বাঁশের খুঁটিতে বেঁধে নৌকার ভেতরে অবস্থান নেন। এ সময় বজ্রপাতে নৌকা থেকে মেঘনা নদীতে পড়ে গিয়ে জেলে সুমন দাস নিখোঁজ হওয়াসহ আরও তিনজন আহত হন। পরে স্থানীয়রা আহত তিনজনকে উদ্ধার করে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে নিকুঞ্জ দাসকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। বাকি দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। নিখোঁজ সুমন দাসকে উদ্ধারের জন্য ডুবুরি দলকে খবর দেয়া হয়েছে।

হাজীপুর ইউপি চেয়ারম্যান ইউসুফ খান পিন্টু বলেন, খবর পেয়ে তিনজনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। সুমন দাস নামে নিখোঁজ একজনকে উদ্ধারে ৯৯৯-এর মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। আত্মীয়-স্বজনসহ স্থানীয়রাও তাকে উদ্ধারে নৌকা নিয়ে মেঘনা নদীতে চেষ্টা চালাচ্ছেন।

অবশেষে আজ সকালে হাজীপুর নয়াপাড়া এলাকায় মেঘনার শাখা নদীতে নিখোঁজ সুমনের মরদেহ ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি ইউনিট।

নরসিংদী ফায়ার স্টেশনের স্টেশন অফিসার মো. রায়হানের নেতৃত্বে টঙ্গী ডুবুরী ইউনিট ভাসমান অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে।
নরসিংদী সদর ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত এসআই শফিউর ও স্থানীয় ইউপি সদস্য ইলিয়াস খানের মাধ্যমে সুমন দাসের মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।