খবর

মাছ রফতানি চার হাজার কোটি টাকা

২০১৮-১৯ অর্থবছর

নিজস্ব প্রতিবেদক: রফতানি আয়ে বড় ভূমিকা রাখতে শুরু করেছে দেশের মৎস্য ও মৎস্যজাত পণ্য। এক বছরে খাতটি থেকে চার হাজার ২৫০ কোটি টাকা বৈদেশিক মুদ্রা আয় করেছে বাংলাদেশ। এছাড়া ইলিশ আহরণে বিশ্বে প্রথম অবস্থানে পৌঁছেছে বাংলাদেশ।

গতকাল মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির অষ্টম বৈঠকে এসব তথ্য উঠে আসে। এতে জানানো হয়, গত অর্থবছরে (২০১৮-১৯) ৭৩ হাজার ১৭১ মেট্রিক টন মৎস্য ও মৎস্যজাত পণ্য রফতানি করে বাংলাদেশ, যার মূল্য স্থানীয় মুদ্রায় চার হাজার ২৫০ কোটি টাকা।

জাতীয় অর্থনীতিতে মৎস্য খাতের অবদান ২০১৮-১৯ অর্থবছরে দেশের মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) তিন দশমিক ৫০ শতাংশ। এছাড়া কৃষিজ জিডিপির ২৫ দশমিক ৭১ শতাংশ মৎস্য খাতের অবদান। জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) ২০১৮ সালের সর্বশেষ প্রতিবেদন অনুযায়ী অভ্যন্তরীণ জলাশয়ে মৎস্য আহরণে বাংলাদেশের অবস্থান সারা বিশ্বে তৃতীয়। অপরদিকে চাষকৃত মাছ উৎপাদনে বাংলাদেশের অবস্থান পঞ্চম।

জানা গেছে, বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় মৎস্য অধিদফতর গত অর্থবছরে ১৪টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করে। চলতি অর্থবছরে ৯টি প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ চলমান হয়েছে।

কমিটির বৈঠকে প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের জন্য প্রয়োজনীয় জনবল সৃষ্টির পদক্ষেপ নিতে সুপারিশ করা হয়। সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি ধীরেনন্দ্র দেবনাথ শম্ভ। এতে আরও উপস্থিত ছিলেন কমিটির সদস্য বিএম কবিরুল হক, মো. শহিদুল ইসলাম (বকুল), নাজমা আকতার, মোছা. শামীমা আক্তার খানম এবং কানিজ ফাতেমা আহমেদ। এছাড়া মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ও সংসদ সচিবালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বৈঠকে অংশ নেন।

সর্বশেষ..