সারা বাংলা

মাদারীপুরে সরকারি ৫০ গাছ কাটার অভিযোগ

প্রতিনিধি, মাদারীপুর: মাদারীপুরে জেলা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই সরকারি অর্পিত সম্পত্তি থেকে অর্ধশত আমগাছ কেটে স্থাপনা নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে দুই প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে। গত শুক্র ও শনিবার সরকারি ছুটির দিনে তারা আমগাছগুলো কেটে সরিয়ে ফেলেন।
জানা গেছে, মাদারীপুর পৌর এলাকার তরমুগরিয়া মৌজার ৫৬৪নং দাগের অর্পিত সম্পত্তি (ভি.পি) কেমিস্টিস্ অ্যান্ড ড্রাগিস্টস্ সমিতি নামে একটি সংগঠন এবং সংগঠনের সম্পাদক সাকিব হাসান ও শামীম নামে এ দুই ব্যক্তি বন্দোবস্ত নেন। তারা ওই অর্পিত সম্পত্তির ওপর স্থাপনা নির্মাণের জন্য আমগাছগুলো কেটে ফেলেন। পরে বালি ফেলে গাছের গোড়া ডেকে ফেলেন।
সরেজমিনে দেখা যায়, তরমুগরিয়া এলাকায় সরকারি অর্পিত সম্পত্তিতে ঘর নির্মাণের জন্য ইট, বালিসহ নির্মাণসামগ্রী রাখা হয়েছে। আম গাছের ডাল ও পাতাগুলো চারপাশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছে। আমগাছের কয়েকটি গোড়া দেখা যাচ্ছে। গাছের মূল অংশগুলো সরিয়ে ফেলা হয়েছে। জমির মাঝে বালি ফেলে সেখানে আরও কিছু গাছের গোড়া ডেকে ফেলা হয়েছে।
স্থানীরা জানান, পরিবশে ভারসাম্য রক্ষায় গাছের ভূমিকা অপরিসীম। কিন্তু কিছু অসাধু লোকজন সরকারি জমিতে স্থাপনা নির্মাণের জন্য ছোট-বড়সহ শতবর্ষী অর্ধশত আমগাছ কেটে ফেলে। এর আগে সবাই এ জায়গাটাকে আমের বাগান বলেই জানত। কিন্তু স্থাপনা নির্মাণের জন্য সাকিব হাসান ও মো. শামীমরা এ গাছ কেটে নিয়ে যায়।
এক ব্যক্তি জানান, গাছ কাটার সময় এলাকাবাসী বাধা দেন কিন্তু তারা লোকজন নিয়ে চড়াও হয়। পরে প্রশাসনকে জানান। পুলিশ ও সরকারি লোকজন এসে ঘুরে গেলেও এখন পর্যন্ত কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এভাবে একের পর এক আমগাছগুলো কেটে ফেলায় পরিবেশের অনেক ক্ষতি হয়ে গেল।
রিয়াজ নামে একজন জানান, আমগাছগুলোতে অনেক মুকুল এসেছিল। এখানে প্রতি বছর অনেক আম হতো। এ বছরও অনেক আম ধরেছিল। কিন্তু সব গাছ প্রভাবশালীরা কেটে নিয়ে গেল।
কেমিস্টিস্ অ্যান্ড ড্রাগিস্টস্ সমিতি সম্পাদক ও ওষুধ ব্যবসায়ী সাকিব হাসান জানান, তারা ওই জায়গা সংগঠনের নামে বন্দোবস্ত নিয়েছেন। কিন্তু গাছ কেটেছে কারা তা জানা নেই। তারা কেউ গাছ কাটার ব্যাপারে কিছইু জানেন না। এ গাছ কাটার সঙ্গে তারা জড়িত নন।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজাহারুল ইসলাম জানান, সরকারি সম্পত্তি বন্দোবস্ত দেওয়া হয় ব্যবহারের জন্য। কিন্তু গাছপালা কাটতে হলে অবশ্য জেলা প্রশাসনের অনুমতি লাগবে। এ বিষয়টি খোঁজখবর নিয়ে জড়িতদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেবেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..