বিশ্ব সংবাদ

মাদ্রিদে শুরু হলো জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলন কপ-২৫

শেয়ার বিজ ডেস্ক : স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে গতকাল সোমবার শুরু হয়েছে জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলন। দু’সপ্তাহব্যাপী এ সম্মেলন চলবে আগামী ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত। চিলিতে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও দেশটিতে চলমান বিক্ষোভের কারণে এটি স্পেনে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে সম্মেলনে সভাপতিত্ব করছেন চিলির পরিবেশমন্ত্রী ক্যারোলিনা স্মিথ সালদিভার। খবর: বিবিসি।

জাতিসংঘের আয়োজনে প্রতিবছরই জলবায়ু সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন বিশ্বের ২০০ দেশের প্রতিনিধি। কনফারেন্স অব দ্য পার্টিজ বা ‘কপ’ নামে পরিচিত এ বছরের সম্মেলন নানা কারণে গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু সব কপই সমান গুরুত্ব পায় না। তবে ‘কপ-২৫’ নামে পরিচিত এবারের সম্মেলন গুরুত্বপূর্ণ। কয়েকটি কারণে এবারের জলবায়ু সম্মেলনকে একটু আলাদাভাবেই দেখছেন বিশ্লেষকরা। 

জার্মানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলে বলেছে, ২০১৫ সালের প্যারিস চুক্তি অনুযায়ী ২০২০ সালের মধ্যে বিশ্বের সব দেশকে ‘ন্যাশনাল ক্লাইমেট অ্যাকশন প্ল্যান’ তৈরির কাজ শেষ করতে হবে। অর্থাৎ, হাতে আছে আর মাত্র এক বছর। ফলে যেসব দেশ এখনও এ কাজ শেষ করতে পারেনি, তাদের ওপর চাপ তৈরির শেষ সুযোগ এবারের সম্মেলন।

প্যারিস চুক্তিতে দেশগুলো বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি প্রাক-শিল্পযুগের (১৮৫০-১৯০০) চেয়ে দুই ডিগ্রি সেলসিয়াসের অনেক নিচে রাখতে সম্মত হয়েছে। তবে তাপমাত্রা বৃদ্ধি দেড় ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে রাখার চেষ্টার কথাও বলা হয়েছে। এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য ২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন ডাই-অক্সাইড নির্গমন ৪৫ শতাংশ কমানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে। ২০৫০ সালের মধ্যে কার্বন নিরপেক্ষ হওয়ার লক্ষ্যও নির্ধারণ করা হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, এবারের সম্মেলনে বিষয়টি গুরুত্ব পাবে।

জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুতে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বেয়েছে বলে মনে করছেন ওয়ার্ল্ড রিসোর্সেস ইনস্টিটিউটের প্রধান অ্যান্ড্রু স্টিয়ার। তার মতে, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশে বিষয়টি আলোচনায় প্রাধান্য পাচ্ছে। এরই মধ্যে বিভিন্ন দেশ ও শহর ‘ক্লাইমেট ইমার্জেন্সি’ ঘোষণা করেছে। ইউরোপীয় পার্লামেন্টও ইউরোপে ‘ক্লাইমেট অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল ইমার্জেন্সি’ ঘোষণা করেছে। তাই এবার দেখার বিষয়, কপ-২৫ এসব বিষয়ে কতটুকু পরিবর্তন আনতে পারে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..