প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

মানব ইতিহাসে প্রাণঘাতী ২৫

একসঙ্গে অনেক মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে, এমন রোগের সংখ্যা কম নয়। এর মধ্যে সবচেয়ে মারাত্মক ২৫টি রোগের তালিকা করেছে যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় টিইডি ম্যাগাজিন। আজ থাকছে ২৫তম প্রাণঘাতী রোগ কলেরা

কলেরা

রোগটি পানিবাহিত। মলযুক্ত পানি পানের মাধ্যমে কলেরায় আক্রান্ত হয় মানুষ। একই সঙ্গে নোংরা খাবারের মাধ্যমেও এ রোগের জীবাণু ছড়িয়ে পড়ে। প্রতিবছর পাঁচ মিলিয়ন মানুষ কলেরার কবলে পড়ে। এ রোগে বছরে প্রায় এক লাখ মানুষ মারা যায়।

কলেরা আক্রান্ত ব্যক্তির শরীর থেকে বারবার চাল ধোয়া পানির মতো মলত্যাগের সঙ্গে পানি ও লবণ বের হয়ে যায়। অতীতে রোগটি নিয়ে আমাদের দেশে অনেক কুসংস্কার প্রচলিত ছিল। তবে আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণাকেন্দ্র, বাংলাদেশের (আইসিডিডিআর,বি) গবেষণা ও উন্নত চিকিৎসাব্যবস্থার কারণে সেসব কুসংস্কার আজ প্রায় অতীত।

১৮৮৩ সালে জার্মান চিকিৎসক ও বিজ্ঞানী রবার্ট হেনরিখ হারম্যান কক কলেরার জীবাণু ভিব্রিও কলেরি আবিষ্কার করেন। কলেরা আক্রান্ত রোগী এক দিনে ৩০ লিটারের মতো মলত্যাগ করতে পারে। এ কারণে শরীরে পানিশূন্যতা দেখা দেয়। পানির ঘাটতি পূরণে স্যালাইন খাওয়ানো হয় রোগীকে। একই সঙ্গে অন্য সব খাবারও খেতে পারে রোগী। প্রসঙ্গত, স্যালাইন আবিষ্কার করেছে আইসিডিডিআর,বি। সংস্থাটি কলেরা নিয়ন্ত্রণে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। যেমন বিশুদ্ধ পানি পানের ওপর গুরুত্ব দিয়েছে তারা। রক্তনালির মধ্যে তরল প্রবেশ করিয়ে কলেরা রোগীকে সুস্থ করে তুলছে। রোগটি দমনে টিকা ও অন্যান্য পরীক্ষা-নিরীক্ষার উন্নয়নে সচেষ্ট রয়েছে সংস্থাটি।