স্পোর্টস

মাশরাফির শরীরে ফের করোনা শনাক্ত

ক্রীড়া প্রতিবেদক: করোনা ভাইরাসজনিত রোগ (কভিড-১৯) সংক্রমণের শুরু থেকেই তিনি ছিলেন নিজ নির্বাচনী এলাকা নড়াইলে। এলাকার মানুষকে সহায়তায় নানা উদ্যোগও নিয়েছিলেন। কিন্তু গত ২০ জুন থেকে পুরোপুরি গৃহবন্দি। এদিনই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার দুঃসংবাদটি পান জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজা। যদিও এরপর তেমন কোনো শারীরিক জটিলতায় পড়েননি তিনি। রাজধানীর মিরপুরে নিজ বাড়িতেই চলছে চিকিৎসা। শরীর সুস্থবোধ করায় চার দিন আগে করোনা পরীক্ষা করিয়েছিলেন নড়াইল-২ আসনের এ সংসদ সদস্য। পরীক্ষার ফল হাতে পেলেন গতকাল। কিন্তু কোনো সুখবর নেই! করোনা পরীক্ষায় ফের পজিটিভ হলেন তিনি। আরও কিছুদিন গৃহবন্দি থাকতে হচ্ছে ক্রিকেটার থেকে জন প্রতিনিধি বনে যাওয়া মাশরাফির।

মাশরাফির শরীরে করোনা শনাক্ত হওয়ার পর এরই মধ্যে ১৪ দিন অতিবাহিত হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী গতকাল তার পরীক্ষা করানোর কথা ছিল। কিন্তু তার আগেই গত মঙ্গলবার ফের টেস্ট করান মাশরাফি। এ ক্রিকেটারের পারিবারিক সূত্রে জানা গেল-দ্বিতীয়বার নমুনা পরীক্ষা করেও করোনা পজিটিভ এসেছে। মাশরাফি নিজেও গণমাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকেই ঢাকার বাড়িতে রয়েছেন মাশরাফি। সেখানেই চিকিৎসকের পরামর্শ মতো চিকিৎসা নিচ্ছেন। এই তো দিন কয়েক আগে মাশরাফির ভাই জানিয়েছিলেন ভালো আছেন ম্যাশ। কিন্তু শনিবার হাতে পেলেন দ্বিতীয় পরীক্ষার রিপোর্ট। দ্বিতীয় পরীক্ষাতে করোনা পজিটিভের খবর সংবাদমাধ্যমে নিজেই জানিয়েছেন মাশরাফি। তবে তিনি ভালো আছেন। শারীরিক কোন সমস্যা নেই। খাওয়া-দাওয়াতেও কোনো সমস্যা হচ্ছে না। তবে আপাতত ঘরেই থাকতে হচ্ছে তাকে।

মাশরাফির চিকিৎসার আপাতত দেখভাল করছেন প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক এবিএম আবদুল্লাহ। তার সার্বক্ষণিক খোঁজখবর রাখছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) মেডিকেল বিভাগ।

এদিকে মাশরাফির পর ২৩ জুন করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন তার ছোট ভাই মোরসালিন বিন মুর্তজাও। বড় ভাইয়ের মতো তারও শারীরিক অবস্থা ভালো। এর আগে মাশরাফির শাশুড়ি ও স্ত্রীর ছোট বোন করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..