Print Date & Time : 20 May 2022 Friday 1:03 am

মাস্ক ছাড়া পূজামণ্ডপে নয়: ডিএমপি কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাঙালি হিন্দুর সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা ঘিরে ‘কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা’ নেয়ার কথা জানানোর পাশাপাশি কভিড-১৯ থেকে নিরাপদ থাকতে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেছেন, মাস্ক ছাড়া কাউকে পূজামণ্ডপে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না। দর্শনার্থীদের সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এক ডোজও টিকা নেননি কিংবা যাদের বয়স ৫০ পেরিয়ে গেছে, তাদের মণ্ডপে না যাওয়ারও পরামর্শ দেন ঢাকার পুলিশপ্রধান।

দুর্গাপূজা সামনে রেখে গতকাল রোববার সকালে ঢাকেশ্বরী মন্দির পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকের সামনে কথা বলেন পুলিশ কমিশনার।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘পূজাকে কেন্দ্র করে জঙ্গি হামলার কোনো ঝুঁকি দেখছি না। তবে কোনো আশঙ্কা উড়িয়েও দিচ্ছি না। অনলাইনে জঙ্গি তৎপরতার অনেক আহ্বান থাকে, সেই আহ্বানে কেউ উদ্বুদ্ধ হয়েছে বলে খবর নেই গোয়েন্দাদের হাতে।’

ঢাকা মহানগর এলাকায় প্রতিমা বিসর্জন পর্যন্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কার কী দায়িত্ব, সে বিষয়ে এরই মধ্যে সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়ার কথা জানান শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, পূজামণ্ডপের নিরাপত্তায় স্থানীয়দের নিয়ে নিরাপত্তা কমিটি গঠন করতে সংশ্লিষ্ট বিভাগের ডিসি ও ওসিদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

দুর্গাপূজার প্রতিমা তৈরির সময়, পূজা চলাকালে ও বিসর্জনের সময় মোবাইল পেট্রোলের মাধ্যমে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। বড় মন্দিরে বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা, ছোট মন্দিরেও টহল ও নজরদারি থাকবে।

ষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে আজ শুরু হবে এবারের শারদীয় দুর্গোৎসব, যা ১৫ অক্টোবর শুক্রবার বিজয়া দশমীতে বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হবে।

কমিশনার ঢাকেশ্বরী মন্দির পরিদর্শনের পর ঢাকা মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটি মন্দিরের অফিস কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করে।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কিশোর রঞ্জন মণ্ডল লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘এ বছর ঘোটকে চেপে মায়ের আগমন এবং দোলায় চেপে গমনের মধ্য দিয়ে দুর্গাপূজা হবে।’

তিনি বলেন, করোনাভাইরাস থেকে মুক্তির জন্য প্রতিটি পূজামণ্ডপে প্রার্থনা করা হবে।

এবার বিজয়া দশমী শুক্রবার হওয়ায় বিকাল ৩টার পর শুরু হবে প্রতিমা বিসর্জনের কাজ। প্রতিটি মণ্ডপ থেকে প্রতিমা নিয়ে নিজ নিজ ঘাটে গিয়ে বিসর্জন দেয়া হবে।

কিশোর রঞ্জন মণ্ডল বলেন, ‘ঐতিহাসিক ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির শুধু হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় স্থান নয়, এটা বাংলাদেশের ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিরও অংশ। শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে সম-অধিকার ও সমমর্যাদা এবং জাতীয় ঐতিহ্য রক্ষায় কিছু বিষয় জাতির সামনে তুলে ধরতে চাই।’

শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে অষ্টমী, নবমী ও বিজয়া দশমীÑএ তিন দিন সরকারি ছুটি ঘোষণা করার দাবি জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।

এছাড়া প্রত্যেক পূজামণ্ডপ ও পূজামণ্ডপগামী সব সড়কে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের পরিবর্তে হিন্দু ফাউন্ডেশন গঠন করার দাবির পাশাপাশি দেবোত্তর সম্পত্তি পুনরুদ্ধার ও সংরক্ষণ আইন প্রণয়নেরও দাবি জানানো হয়।