বিশ্ব সংবাদ

মিয়ানমারে ফের ইইউ যুক্তরাজ্যের নিষেধাজ্ঞা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: মিয়ানমারের জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে নতুন করে আবারও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও যুক্তরাজ্য। গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এ নিয়ে তিনবার ইইউর নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়ল দেশটি। সোমবার মিয়ানমারের আট ব্যক্তি, তিন অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান ও দেশটির যুদ্ধ ভেটেরান্স অরগানাইজেশনের ওপর এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। এসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মিয়ানমারের গণতন্ত্রকামীদের ওপর দমন-নিপীড়ন চালানোর অভিযোগ আনা হয়েছে। খবর: বিবিসি, রয়টার্স।

বেশ কয়েকজন মন্ত্রী, উপমন্ত্রী ও মিয়ানমারের অ্যাটর্নি জেনারেল এ নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়েছেন। তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে মিয়ানমারে গণতন্ত্র ও আইনের শাসন ক্ষুণœ করার অভিযোগ রয়েছে। এদিকে ষষ্ঠ দফায় মিয়ানমারের ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাজ্য। সোমবার এক বিবৃতিতে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোমিনিক রাব জানান, নতুন এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হচ্ছে মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন দুই প্রতিষ্ঠান টিম্বার এন্টারপ্রাইজ ও মিয়ানমার পার্ল এন্টারপ্রাইজের ওপর। যুক্তরাজ্যে থাকা প্রতিষ্ঠান দুটির সব সম্পদও বাজেয়াপ্ত করা হবে। প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে মিয়ানমারের সামরিক শাসক বহু রাজস্ব আয় করে থাকে।

জান্তাবিরোধী মিলিশিয়ার সঙ্গে সেনাবাহিনীর সংঘর্ষ: এদিকে মিয়ানমারের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মান্দালয়ে গতকাল মঙ্গলবার নবগঠিত মিলিশিয়া দলের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সংঘর্ষের সময় নিরাপত্তা বাহিনী সাঁজোয়া যান ব্যবহার করেছে বলে জানিয়েছে তারা।

খিত থিট গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেনাবাহিনী তিনটি সাঁজোয়া যান নিয়ে মান্দালয়ের একটি বোর্ডিং স্কুলে অবস্থিত মিলিশিয়াদের একটি ঘাঁটি ঘিরে ফেলেছিল। এ বিষয়ে মন্তব্যের জন্য ফোন করা হলেও সামরিক জান্তার এক মুখপাত্র জবাব দেননি। 

ফেব্রুয়ারি থেকে জান্তাবিরোধী বিক্ষোভ দমন করেছে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী। এর প্রতিক্রিয়ায় মিয়ানমারজুড়ে ‘পিপলস ডিফেন্স ফোর্সেস’ বলে পরিচিত সামরিক অভ্যুত্থানবিরোধী দলগুলোর আবির্ভাব ঘটতে শুরু করে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..