প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

মেক্সিকোতে গাড়ি কারখানা স্থাপনে টয়োটাকে সতর্ক করলেন ট্রাম্প

শেয়ার বিজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রে রফতানির উদ্দেশ্যে মেক্সিকোতে গাড়ি নির্মাণ কারখানা স্থাপন করলে টয়োটার ওপর বড় অঙ্কের আমদানি কর আরোপের হুমকি দিয়েছেন নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

খবর বিবিসি।

এক টুইট বার্তায় ট্রাম্প বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রে রফতানির লক্ষ্যে করোলা গাড়ি তৈরির জন্য মেক্সিকোর বাজায় একটি নতুন প্ল্যান্ট স্থাপনের কথা বলছে টয়োটা। কোনো রাস্তা নেই! হয় যুক্তরাষ্ট্রে প্ল্যান্ট স্থাপন করো অথবা বড় অঙ্কের সীমান্ত কর পরিশোধ করো।’

টয়োটার মুখপাত্র জানিয়েছেন, তারা ট্রাম্পের টুইটের জবাব দেওয়ার পরিকল্পনা নিচ্ছেন। ট্রাম্পের এ টুইটের খবরে কোম্পানিটির শেয়ারদর দশমিক ৬ শতাংশ কমেছে।

এদিকে জাপানের প্রধান মন্ত্রিপরিষদ সচিব ইয়োশিহিদি সুগা বলেছেন, টয়োটা যুক্তরাষ্ট্রের জন্য একটি ‘গুরুত্বপূর্ণ করপোরেট নাগরিক’। বাণিজ্যমন্ত্রী হিরোসিং সেকো বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের চাকরির বাজারে জাপানের টয়োটার অবদান জোরালো।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক জেপি মরগানের বিশেষজ্ঞ আকিরা কিশিমিটো বলেন, মেক্সিকোয় টয়োটার প্রবেশ খুব বেশি নয়। তিনি বলেন, যদি ২০ শতাংশ শুল্ক আরোপ করা হয়, তাতে কোম্পানিটির মুনাফায় ৬ শতাংশ প্রভাব পড়বে। তবে মেক্সিকো থেকে গাড়ি আমদানিতে ট্রাম্প ৩৫ শতাংশ শুল্ক আরোপ করার হুমকি দিয়েছেন।

সম্প্রতি গাড়ি প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলোর উদ্দেশে আক্রমণাত্মক টুইট করছেন ট্রাম্প। এর আগে মঙ্গলবার মেক্সিকোয় উৎপাদন বিষয়ে ফোর্ড ও জেনারেল মোটরসের সমালোচনা করেছিলেন ট্রাম্প। বিদেশি কোনো কোম্পানির উদ্দেশে এটিই প্রথম টুইট তার।

টুইটে ট্রাম্প বলেন, ‘জেনারেল মোটরস শুল্কমুক্তভাবে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে শেভ্রলেট ক্রুজ মডেলের গাড়ি মেক্সিকোয় উৎপাদন করছে। এটি যুক্তরাষ্ট্রে তৈরি করো অথবা বড় ধরনের কর দাও।’

ট্রাম্পের টুইটের পর মেক্সিকোয় ১ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলার ব্যয়ে প্ল্যান্ট নির্মাণ পরিকল্পনা বাতিল করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ফোর্ড মোটরস। এর বদলে মিশিগান রাজ্যে কোম্পানিটির কার্যক্রম বাড়ানো হবে বলে জানিয়েছে ফোর্ড। যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান স্টেটের ফ্লাট রকে গাড়ি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানটি ৭০০ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করবে।

ফোর্ডের প্রধান মার্ক ফিল্ড বলেন, ছোট গাড়িগুলো বিক্রি কমে যাওয়ায় এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের নীতিতে ‘আস্থা ভোটে’র অংশ হিসেবে মেক্সিকোয় প্ল্যান্ট নির্মাণ বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মেক্সিকোয় অবশ্য পুরোপুরি উৎপাদন বন্ধ করেনি ফোর্ড। মুনাফা বাড়ানোর জন্য প্রধান কয়েকটি মডেলের উৎপাদন প্রতিস্থাপন করা হয়েছে বলে জানায় প্রতিষ্ঠানটি। আধুনিক মডেলের গাড়িগুলো মিশিগানের নতুন প্ল্যান্টে তৈরি করা হবে। প্রস্তাবিত মেক্সিকো প্ল্যান্টের দুটি গাড়ি এখানে স্থানান্তর করা হবে। এতে যুক্তরাষ্ট্রে ৩ হাজার ৫০০ কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। এছাড়া ফ্লাট রকে বৈদ্যুতিক গাড়ি খাতে ৭০০ চাকরির সুযোগ সৃষ্টি হবে।

ওহিওতে লর্ডস টাউন ফ্যাক্টরির ইউনিয়ন প্রধান গ্লেন জনসন বলেন, যাত্রীবাহী গাড়ি উৎপাদনে দেশের বাইরে যাওয়ার ব্যাপারে কোনো বিরোধিতা ছিল না। তবে ট্রাম্পের টুইটে আমরা একটি বার্তা পেলাম।

নর্থ আমেরিকান ফ্রি ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট (এনএএফটিএ) চুক্তির আওতায় শুল্কমুক্ত সীমান্ত পারাপারের সুযোগে কোম্পানিগুলো মেক্সিকোয় গাড়ি তৈরি করতে পারে। প্রেসিডেন্সিয়াল নির্বাচনী প্রচারে এর বিরোধিতা করে ট্রাম্প বলেছিলেন, এর ফলে যুক্তরাষ্ট্রে ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে চাকরি কমছে এবং শ্রম মজুরি তুলনামূলক সস্তা হচ্ছে।

নির্বাচনী প্রচারে ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের অন্যান্য শিল্পেরও সমালোচনা করেছন। তিনি প্রতিজ্ঞা করেছিলেন নির্বাচনে জয়ী হলে আমেরিকায় চাকরি বাড়াতে এসব শিল্পকে দেশের বাইরে গিয়ে উৎপাদনে বাধানিষেধ আরোপ করবেন।

তার এ ঘোষণায় অনেক সমালোচক উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, এতে করে আমদানিতেও প্রতিবন্ধকতা আসবে, যা যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতির জন্য ক্ষতিকারক।