প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

মেঘনা ইন্স্যুরেন্সের শেয়ারদর বেড়েছে ৬০ শতাংশ

সাপ্তাহিক বাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বিমা খাতের কোম্পানি মেঘনা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড গত সপ্তাহে দর বৃদ্ধির তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে। আলোচিত সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারদর বেড়েছে ৫৯ দশমিক ৫৫ শতাংশ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রমতে, গত সপ্তাহে কোম্পানিটির প্রতিদিন গড় লেনদেন হয়েছে ৩১ লাখ ৩০ হাজার ৬০০ টাকার শেয়ার। সপ্তাহ শেষে মোট লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়ায় এক কোটি ৫৬ লাখ ৫৩ হাজার টাকা।

এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে শেয়ারদর ৯ দশমিক ৮০ শতাংশ বা ৪ টাকা ৪০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ৪৯ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল একই। দিনভর কোম্পানিটির শেয়ারদর সর্বনি¤œ ও সর্বোচ্চ ৪৯ টাকা ৩০ পয়সায় লেনদেন হয়। দিনজুড়ে ২ লাখ ২৪ হাজার ৯৪০টি শেয়ার মোট ৭ হাজার ১৮৩ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর এক কোটি ১০ লাখ টাকা।

এদিকে সম্প্রতি প্রান্তিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে মেঘনা ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড। তৃতীয় প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ২০২১) মেঘনা ইন্স্যুরেন্সের নেট মুনাফা হয়েছে ২২ লাখ ৩০ হাজার টাকা, আগের হিসাববছরের একই সময়ে যা ছিল পাঁচ কোটি ৩১ লাখ ২০ হাজার টাকা (লোকসান)। এ সময় কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৯ পয়সা, আগের হিসাববছরের একই সময়ে যা ছিল ছয় টাকা ৬৯ পয়সা (লোকসান)। আইপিও শেয়ার বিবেচনায় নিলে ইপিএস দাঁড়াবে ছয় পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১ কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি নেট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৭ টাকা ২৬ পয়সা (আইপিও-পূর্ব পরিশোধিত শেয়ারের ভিত্তিতে), আইপিও শেয়ার বিবেচনায় নিলে যা দাঁড়াবে ১৪ টাকা ৩৬ পয়সা। ৩০ সেপ্টেম্বর শেষে কোম্পানিটির মোট শেয়ার সংখ্যা ছিল দুই কোটি ১০ লাখ ৩০ হাজার ৯৫০। এর সঙ্গে আইপিও শেয়ার যোগ হলে মোট শেয়ার সংখ্যা দাঁড়াবে চার কোটি। আর চলতি হিসাববছরের প্রথম তিন প্রান্তিক বা ৯ মাসে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর, ২০২১) মেঘনা ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের কর-পরবর্তী নেট মুনাফা হয়েছে দুই কোটি ৭০ লাখ ৫০ হাজার টাকা, আগের হিসাববছরের একই সময়ে যা ছিল পাঁচ কোটি ৭১ লাখ ৪০ হাজার টাকা। এ হিসাবে প্রথম তিন প্রান্তিকে কোম্পানিটির নেট মুনাফা কমেছে তিন কোটি ৯০ হাজার টাকা। আলোচ্য সময়ে প্রতিষ্ঠানটির ইপিএস হয়েছে এক টাকা ২৯ পয়সা, আগের হিসাববছরের একই সময়ে যা ছিল সাত টাকা ২০ পয়সা। আইপিও শেয়ার বিবেচনায় নিলে প্রথম তিন প্রান্তিকে কোম্পানিটির ইপিএস দাঁড়াবে ৬৮ পয়সা।

প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে তহবিল সংগ্রহের পর গত ১৫ জুন বুধবার থেকে কোম্পানিটির লেনদেন শুরু হয়েছে। এর আগে আইপিওতে বরাদ্দ দেয়া শেয়ার বিনিয়োগকারীদের বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) হিসেবে পাঠিয়েছে মেঘনা ইন্স্যুরেন্স। আর চলতি বছরের ১১ থেকে ১৮ মে পর্যন্ত কোম্পানিটির আইপিওতে আবেদন গ্রহণ করা হয়। কোম্পানিটির আইপিওতে ১০ হাজার টাকা আবেদনের বিপরীতে প্রত্যেক সাধারণ বিনিয়োগকারী ২০-২১টি শেয়ার পেয়েছেন। আর বিদেশি বিনিয়োগকারীরা পেয়েছেন ২১-২২টি শেয়ার। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) ৮১৩তম কমিশন সভায় মেঘনা ইন্স্যুরেন্সের আইপিও অনুমোদন দেয়া হয়। আইপিওর মাধ্যমে প্রতিটি ১০ টাকা মূল্যের এক কোটি ৬০ লাখ শেয়ার ইস্যু করে পুঁজিবাজার থেকে ১৬ কোটি টাকা উত্তোলন করে মেঘনা ইন্স্যুরেন্স। উত্তোলিত অর্থ পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ, সরকারি সিকিউরিটিজ ক্রয়, স্থায়ী আমানতে বিনিয়োগ এবং আইপিও খাতে ব্যয় করবে কোম্পানিটি।

তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিং স্টেশন লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ২২ দশমিক ৫৫ শতাংশ। এর পরের অবস্থানগুলোয় থাকা যথাক্রমে প্রাইম টেক্সটাইল স্পিনিং মিলস লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ১৯ দশমিক ৭৯ শতাংশ। সোনারগাঁও টেক্সটাইলস লিমিটেডের শেয়ারদর বেড়েছে ১৭ দশমিক ৫৬ শতাংশ। পঞ্চম অবস্থানে থাকা হামিদ ফেব্রিকস লিমিটেডের ১৫ দশমিক ০৫ শতাংশ বেড়েছে।