দিনের খবর শেষ পাতা সুস্বাস্থ্য

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফল বাতিলের আবেদন খারিজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফল বাতিল করে নতুন মেধাতালিকায় ভর্তির নির্দেশনা চেয়ে করা একটি রিট আবেদন পর্যবেক্ষণসহ খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল এ আদেশ দেন।

রিটকারীর পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মোহাম্মদ হুমায়ন কবির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাম্মদ মেহেদী হাসান চৌধুরী ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।

পরে আইন কর্মকর্তা বিপুল বাগমার বলেন, ‘পর্যবেক্ষণে আদালত বলেছেন, কোনো পরীক্ষার্থীর ফল নিয়ে অভিযোগ থাকলে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের কাছে আবেদন করার সুযোগ আছে।

আবেদন করলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে সাত দিনের মধ্যে আবেদনটি নিষ্পত্তি করতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া তথ্য গোপন করে কোনো প্রার্থী যদি ভর্তি প্রক্রিয়ার অংশ নেন, চিহ্নিত হলে তাদের ভর্তি তাৎক্ষণিকভাবে বাতিল হবে।’

গত ৪ এপ্রিল ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। জাতীয় মেধার ভিত্তিতে সরকারি ৩৭টি মেডিকেল কলেজে ভর্তির জন্য চার হাজার ৩৫০ ভর্তি-ইচ্ছুক শিক্ষার্থীকে নির্বাচিত করা হয়।

পরীক্ষায় অংশ নেয়া ৪৮ হাজার ৯৭৫ জন উত্তীর্ণ হন, যা মোট পরীক্ষার্থীর ৩৯ দশমিক ৮৬ শতাংশ।

এ ফল ‘ত্রুটিপূর্ণ’ বলে দাবি করে তা সংশোধন ও নতুন মেধাতালিকা প্রণয়নের মাধ্যমে মেডিকেল কলেজগুলোয় শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য স্বাস্থ্য সচিব ও শিক্ষা সচিবসহ দুই কর্মকর্তার দপ্তরে উকিল নোটিস পাঠানো হয়।

২৪৮ পরীক্ষার্থীর পক্ষে নোটিসটি পাঠিয়েছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ হুমায়ন কবির। তাতে তিন দিনের মধ্যে জবাব চাওয়া হয়েছিল সংশ্লিষ্টদের কাছে।

কিন্তু নোটিসের জবাব না পাওয়ায় আদালতের অনুমতি নিয়ে ৩২৪ পরীক্ষার্থীর পক্ষে গত ১৯ মে এ রিট আবেদনটি করা হয়। স্বাস্থ্য সচিব, শিক্ষা সচিব, স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও পরিচালক এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে সেখানে বিবাদী করা হয়।

আইনজীবী হুমায়ন কবির সেদিন সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ভর্তি পরীক্ষায় অন্তত দুটি নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নের উত্তরপত্রে দুটি করে সঠিক উত্তর ছিল। পাশাপাশি অন্তত তিনটি নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্নের কোনো সঠিক উত্তর ছিল না।

প্রকাশিত ওই পরীক্ষার ফলে অসংখ্য ভুল এবং বড় ধরনের অসংগতি পাওয়া গেছে। এসব ত্রুটি ও অসংগতি রেখে মেধাতালিকা প্রণয়ন করার ফলে অনেক যোগ্য ও মেধাবী পরীক্ষার্থী মেডিকেল কলেজগুলোয় ভর্তি হওয়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হবেন। এ কারণে রিট আবেদনটি করা হয়েছে।

গত ২৪ মে রিট আবেদনের ওপর প্রাথমিক শুনানি হয়। বৃহস্পতিবার আদেশে তা খারিজ করে দিলেন আদালত।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন
ট্যাগ ➧

সর্বশেষ..