টেলকো টেক

মেলায় যাই রে……….

ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করতে চায় সরকার। আর এ কাজে সরকারকে সহায়তা করছে দেশের আইটি খাতের ডেভেলপাররা। বিশেষ করে এতে সফটওয়্যার ডেভেলপারদের বেশ ভূমিকা রয়েছে।

সফটওয়্যার ডেভেলপারদের উদ্বুদ্ধ করতেই আগামী বুধবার থেকে চার দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে ‘বেসিস সফটএক্সপো ২০১৭’। এটিই দেশের বেসরকারি খাতের সবচেয়ে বড় তথ্য ও প্রযুক্তিবিষয়ক প্রদর্শনী।

এ মেলার আয়োজক তথ্যপ্রযুক্তি খাতের শীর্ষ বাণিজ্যিক সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস)। ‘ফিউচার ইন মোশন’ সেøাগান নিয়ে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে সংগঠনটি। এবার বসছে ১১তম আসর।

আয়োজক সংস্থা জানিয়েছে, আগের যে কোনো আইটিএক্সপো থেকে এবারের মেলা আরও বিস্তৃত করা হয়েছে। মেলাকে চারটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে বিজনেস সফটওয়্যার জোন, আইটিইএস ও বিপিও জোন, মোবাইল ইনোভেশন জোন ও ই-কমার্স জোন। মেলায় বেসিসের সব সদস্য প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে। সংগঠনের বাইরে থেকেও অনেক প্রতিষ্ঠান আসবে। সব মিলিয়ে দেড়শ প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মেলায় অন্তত পাঁচ লাখ দর্শনার্থীর আশা করছে বেসিস।

বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘দেশি তথ্যপ্রযুক্তি কোম্পানিগুলোর ব্যবসা প্রসারে সবচেয়ে কার্যকর জায়গা বেসিস সফটএক্সপো। আশা করি বিগত সময়ের চেয়ে এবারের সফটএক্সপো বেশি সফল হবে।’ মেলা নিয়ে বেসিসের পরিচালক ও প্লাটিনাম স্পন্সর মাইক্রোসফট বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির বলেছেন, মাইক্রোসফট বিদেশি কোম্পানি হিসেবে প্রতিযোগিতা করতে নয়, বরং ইন্ডাস্ট্রি ও দেশি কোম্পানিগুলোকেই সহযোগিতা করছে। এ ধারাবাহিকতায় এবারের সফটএক্সপোয় আমরা প্লাটিনাম স্পন্সর হিসেবে যুক্ত হয়েছি।

জব ফেয়ার, সেমিনার, পুরস্কার

সফটএক্সপো ২০১৭তে আইটি-সংক্রান্ত দিকনির্দেশনার সঙ্গে দক্ষতা বাড়ানোর নানা আয়োজন থাকছে। এর মধ্যে আইটি জব ফেয়ার উল্লেখযোগ্য। দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে চাকরির সুযোগ করে দেওয়া এ জব ফেয়ারের লক্ষ্য। একই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর ব্যবসা প্রসারে আয়োজন করা হবে স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বিজনেস ম্যাচমেকিং সেশন। রয়েছে সিএক্সও নাইট। ফ্রি ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট সুবিধা পাবেন মেলায় আগতরা।

মুক্ত পেশাজীবীদের কাজের স্বীকৃতি দিতে ‘বেসিস আউটসোর্সিং অ্যাওয়ার্ড’-এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে এবারের মেলায়। তাছাড়া ই-এডুকেশন, ই-গভর্ন্যান্স, ই-হেলথ, সোশ্যাল মিডিয়া, মোবাইল অ্যাপ ও গেম, সাইবার সিকিউরিটি, লোকাল মার্কেট এবং এক্সপোর্ট মার্কেট গ্রোথসহ আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সেমিনার ও সেশন অনুষ্ঠিত হবে।

মেলায় অংশ নিতে চাইলে নিবন্ধন করতে হবে। মেলায় গিয়ে অনসাইট রেজিস্ট্রেশনও করতে পারেন। নিবন্ধন-সংক্রান্ত তথ্য জানা যাবে http://www.softexpo.com.bd/home -এ ওয়েবসাইটে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..