কোম্পানি সংবাদ

মেয়াদ বাড়ল চার মিউচুয়াল ফান্ডের

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত চার মিউচুয়াল ফান্ড এক্সিম ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড, ফার্স্ট বাংলাদেশ ফিক্সড ইনকাম ফান্ড, আইএফআইসি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড এবং পিএইচপি ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
এক্সিম ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত এক্সিম ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের মেয়াদ আরও ১০ বছর বাড়ানো হয়েছে। তহবিলটির ব্যবস্থাপক বাংলাদেশ রেস ম্যানেজমেন্ট জানিয়েছে, সরকারের আদেশ অনুযায়ী বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এক্ষেত্রে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স, ১৯৬৯ আইনের ২০এ ধারা প্রয়োগ করা হয়েছে।
এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে ফান্ডটির ইউনিটপ্রতি দর অপরিবর্তিত থেকে প্রতিটি সর্বশেষ পাঁচ টাকায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল পাঁচ টাকা। ওইদিন দুই লাখ ৯৪ হাজার ১৫০টি ইউনিট মোট ৬৫ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ১৪ লাখ ৮২ হাজার টাকা। দিনভর ইউনিটপ্রতি দর সর্বনিম্ন চার টাকা ৬০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ সাত টাকায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে ইউনিট দর চার টাকা ৬০ পয়সা থেকে সাত টাকায় ওঠানামা করে।
মিউচুয়াল ফান্ড খাতের এ কোম্পানিটি ২০১৩ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ফান্ডটির পরিশোধিত মূলধন ১৪৩ কোটি ২৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ চার কোটি ৬৮ লাখ ৩০ হাজার টাকা। ফান্ডটির মোট ১৪ কোটি ৩২ লাখ ৫৬ হাজার ৩৪৪টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসই থেকে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্যমতে, ফান্ডটির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ২১ দশমিক ৯৭ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ৬৯ দশমিক ৫৫ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে আট দশমিক ৪৮ শতাংশ শেয়ার। সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারের মূল্য আয় (পিই) অনুপাত চার দশমিক ৫০ এবং হালনাগাদ অনিরীক্ষিত ইপিএসের ভিত্তিতে ১৩ দশমিক ৫১।
ফার্স্ট বাংলাদেশ ফিক্সড ইনকাম ফান্ড: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ফার্স্ট বাংলাদেশ ফিক্সড ইনকাম ফান্ডের মেয়াদ আরও ১০ বছর বাড়ানো হয়েছে। তহবিলটির ব্যবস্থাপক বাংলাদেশ রেস ম্যানেজমেন্ট জানিয়েছে, সরকারের আদেশ অনুযায়ী বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এক্ষেত্রে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স, ১৯৬৯ আইনের ২০এ ধারা প্রয়োগ করা হয়েছে।
এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে ফান্ডটির ইউনিটপ্রতি দর দুই দশমিক ৩৩ শতাংশ বা ১০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ চার টাকা ৪০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল চার টাকা ৪০ পয়সা। ওইদিন পাঁচ লাখ ১৪ হাজার ৯৩২টি ইউনিট মোট ৬৩ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ২২ লাখ ৩৮ হাজার টাকা। দিনভর ইউনিটপ্রতি দর সর্বনিম্ন চার টাকা ৩০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ চার টাকা ৪০ পয়সায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে ইউনিটদর চার টাকা থেকে ৫ টাকা ৭০ পয়সায় ওঠানামা করে।
মিউচুয়াল ফান্ড খাতের এ কোম্পানিটি ২০১২ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ফান্ডটির পরিশোধিত মূলধন ৭৭৬ কোটি ১৪ লাখ ৭০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ৬২ কোটি আট লাখ ৬০ হাজার টাকা। ফান্ডটির মোট ৭৭ কোটি ৬১ লাখ ৪৭ হাজার ২৮টি শেয়ার রয়েছে।
আইএফআইসি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আইএফআইসি ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের মেয়াদ আরও ১০ বছর বাড়ানো হয়েছে। তহবিলটির ব্যবস্থাপক বাংলাদেশ রেস ম্যানেজমেন্ট জানিয়েছে, সরকারের আদেশ অনুযায়ী বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এক্ষেত্রে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স, ১৯৬৯ আইনের ২০এ ধারা প্রয়োগ করা হয়েছে।
এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে ফান্ডটির ইউনিটপ্রতি দর দুই দশমিক ২২ শতাংশ বা ১০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ চার টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল চার টাকা ৫০ পয়সা। ওইদিন দুই লাখ ৬৪ হাজার ৫৯৫টি ইউনিট মোট ৩৯ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ১১ লাখ ৯১ হাজার টাকা। দিনভর ইউনিটপ্রতি দর সর্বনিম্ন চার টাকা ৪০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ চার টাকা ৬০ পয়সায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে ইউনিট দর চার টাকা থেকে পাঁচ টাকা ৯০ পয়সায় ওঠানামা করে।
মিউচুয়াল ফান্ড খাতের এ কোম্পানিটি ২০১০ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ফান্ডটির পরিশোধিত মূলধন ১৮২ কোটি ১৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ পাঁচ কোটি ৫৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা। ফান্ডটির মোট ১৮ কোটি ২১ লাখ ৬৭ হাজার ৯৬৫টি শেয়ার রয়েছে।
পিএইচপি ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ড: পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত পিএইচপি ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের মেয়াদ আরও ১০ বছর বাড়ানো হয়েছে। তহবিলটির ব্যবস্থাপক বাংলাদেশ রেস ম্যানেজমেন্ট জানিয়েছে, সরকারের আদেশ অনুযায়ী বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এক্ষেত্রে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স, ১৯৬৯ আইনের ২০এ ধারা প্রয়োগ করা হয়েছে।
এদিকে সর্বশেষ কার্যদিবসে ডিএসইতে ফান্ডটির ইউনিটপ্রতি দর চার দশমিক ৫৫ শতাংশ বা ২০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ চার টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দরও ছিল চার টাকা ৬০ পয়সা। ওইদিন ৯ লাখ ২৬ হাজার ৫৯৮টি ইউনিট মোট ১৭০ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৪২ লাখ ২৬ হাজার টাকা। দিনভর ইউনিটপ্রতি দর সর্বনিম্ন চার টাকা ৪০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ চার টাকা ৭০ পয়সায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে ইউনিট দর চার টাকা ২০ পয়সা থেকে ছয় টাকা ৩০ পয়সায় ওঠানামা করে।
মিউচুয়াল ফান্ড খাতের এ কোম্পানিটি ২০১০ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ফান্ডটির পরিশোধিত মূলধন ২৮১ কোটি ৮৯ লাখ ৩০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ১১ কোটি ২৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা। ফান্ডটির মোট ২৮ কোটি ১৮ লাখ ৯৩ হাজার ২৬৪টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসই থেকে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্যমতে, ফান্ডটির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ১০ দশমিক ২৬ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ৬৮ দশমিক ৮৭ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ২০ দশমিক ৮৭ শতাংশ শেয়ার।

সর্বশেষ..