বিশ্ব বাণিজ্য

ম্যাকডোনাল্ড’সের স্যান্ডউইচে ধাতব টুকরা!

শেয়ার বিজ ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ফাস্টফুড কোম্পানি ম্যাকডোনাল্ড’সের স্যান্ডউইচে একটি ধাতব টুকরা পাওয়া গেছে। অস্ট্রেলিয়ার সিডনি শহরে এক নারী তার তিন বছরের ভাতিজিকে সেই স্যান্ডউইচ খেতে দিয়েছিলেন। কিন্তু শেষে স্যান্ডউইচটি নিজে খেতে গিয়ে দাঁত ভাঙার উপক্রম হয়েছিল তার। এ ঘটনায় ক্ষমা চেয়েছে ম্যাকডোনাল্ড’স কর্তৃপক্ষ। খবর: ফক্স নিউজ।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঘটনার শিকার ওই নারীর নাম আডা তিউপা। গত শুক্রবার পশ্চিম সিডনির কার্টরাইটসে ম্যাকডোনাল্ড’সের আউটলেট থেকে তিনি একটি চিকেন অ্যান্ড চিজ স্যান্ডউইচ কেনেন, কিন্তু তা খেতে গিয়েই বাধে বিপত্তি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রডসহ স্যান্ডউইচটির ছবি পোস্ট করে তিনি লিখেছেন, ‘দেখুন, আমি চিকেন অ্যান্ড চিজ স্যান্ডউইচে কী পেয়েছি! এটা খেতে গিয়ে আমার দাঁত প্রায় ভাঙতে বসেছিল। আমার ভাইয়ের মেয়েও স্যান্ডউইচের অর্ডার করেছিল, কিন্তু ভাগ্য ভালো সেখানে কিছু পাওয়া যায়নি।’

ওই নারী আরও বলেন, তিনি তার কেনা ওই স্যান্ডউইচটি তার ভাতিজিকে খেতে দিতে চেয়েছিল, কিন্তু তখন সে ক্ষুধার্ত না থাকায় খেতে চায়নি। তারপর তিনি খাওয়া শুরু করতেই ধাতব ধাতব টুকরা খুঁজে পান। কামড় দেওয়ার কারণে তার দাঁতে ব্যথা শুরু হয়ে যায়।

ঘটনার পর তিনি স্যান্ডউইচটি নিয়ে ম্যাকডোনাল্ড’সের আউটলেটে যান। সেখানকার ব্যবস্থাপক তা দেখে কিছুটা দ্বিধার মধ্যে পড়েন। তারপর তিনি ওই নারীর কাছে এর জন্য ক্ষমা চেয়ে তাকে নতুন আরেকটি স্যান্ডউইচ দিয়ে পরিস্থিতির সামাল দেন।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ওই নারীর পোস্ট করা ছবিটি দেখে অনেকে বিস্ময় প্রকাশ করে এর সমালোচনা করেন। একজন লেখেন, ‘ভাগ্য ভালো আপনি এমন কিছু খুঁজে পেয়েছেন, যা সহজে খেয়ে ফেলা যায় না।’ আরেকজন ম্যাকডোনাল্ড’সের এমন কাজে তীব্র নিন্দা জানান।

ম্যকডোনাল্ড’সের মুখপাত্রের সঙ্গে এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে এ ঘটনার জন্য তদন্ত করা হচ্ছে বলে জানান তিনি। মুখপাত্র বলেন, ‘যা হয়েছে তার জন্য আমরা হতাশ। নিরাপদ খাদ্যপণ্য বিক্রিতে আমরা খুব সচেতন। এ ভুল অনিচ্ছাকৃত।’

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..