মত-বিশ্লেষণ

যতটা ভালোভাবে সম্ভব শিশুর প্রশ্নের উত্তর দিন

আপনার শিশুসন্তান কী চিন্তা করে, তাদের জিজ্ঞাসা করুন। তাদের মধ্যে উদ্বেগের কোনো লক্ষণ রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখুন। এক্ষেত্রে শারীরিক ভাষায় বা কণ্ঠস্বরে পরিবর্তন আছে কি না, পর্যবেক্ষণ করুন। যতটা ভালোভাবে সম্ভব, তাদের প্রশ্নের উত্তর দিন। আপনার সব উত্তর জানা থাকবে না, এটিই স্বাভাবিক। এটি আমাদের সবার জন্যই একটি নতুন পরিস্থিতি। তাদের মনে করিয়ে দিন, তারা যে কোনো প্রশ্ন বা উদ্বেগ নিয়ে যে কোনো সময় আপনার কাছে আসতে পারে। তারা কেমন বোধ করছে, তা নিয়মিত খেয়াল রাখুন। তাদের বয়স অনুসারে কথোপকথন শুরু করার জন্য এবং তারা যে তথ্য পাচ্ছে, তা নির্ভরযোগ্য কি না, সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে আপনি জিজ্ঞাসা করতে পারেন যে, তারা তাদের বন্ধুদের কাছ থেকে এ বিষয়ে কী শুনছে।

ঘরেই শুরু করুন: বাড়িতে কিছুক্ষণ একসঙ্গে সবাই মাস্ক পরার চেষ্টা করুন এবং ধীরে ধীরে আপনার শিশুদের মাস্ক পরাতে অভ্যস্ত হতে সাহায্য করার জন্য সময় বাড়ান। ওপরের চেক লিস্টটি ব্যবহার করে একত্রে মাস্ক পরিধান করা, মাস্ক পরে থাকা এবং খুলে ফেলার বিষয়গুলো নিয়ে চর্চা করুন।

মনে রাখবেন, ছোট শিশুরা হাসির মতো দৃশ্যমান যোগাযোগের ইঙ্গিতগুলোর ওপর বেশি নির্ভর করে, তাই তাদের সঙ্গে মাস্ক পরেই কণ্ঠ ব্যবহার করে হাসার চর্চা করুন। মাস্ককে শিশুদের কাছে আরও পরিচিত ও গ্রহণযোগ্য করে তুলতে তাদের পছন্দের কোনো খেলনা প্রাণীর মুখেও মাস্ক পরিয়ে দিতে পারেন।

বর্তমানে অনেক রং ও নকশার মাস্ক তৈরি হচ্ছে এবং শিশুরা নিজেদের প্রকাশ করার ক্ষেত্রে এগুলোকে সুযোগ হিসেবে দেখবে। মজার কার্যক্রমের মাধ্যমে শিশুদের মাস্ক বা এর কাপড় বেছে নিতে দিন এবং যত বেশি সম্ভব তাদের সম্পৃক্ত করুন। শিশুরা মাস্ক যত বেশি পছন্দ করবে, তাদের মাস্ক পরার সম্ভাবনা তত বেশি বাড়বে, এমনকি আপনি আশেপাশে না থাকলেও।

ধারাবাহিকতা নিশ্চিত করুন: সফলভাবে মাস্ক পরা একটি নতুন অভ্যাস গড়ে তোলার মতোই। তাই সঠিক আচরণ প্রদর্শন ও পুনরাবৃত্তি গুরুত্বপূর্ণ। সঠিকভাবে মাস্ক পরার গুরুত্বের পুনরাবৃত্তির উপায় খুঁজে বের করুন এবং যদি এমন কিছু দেখেন, যা সঠিক নয়, সেক্ষেত্রে প্রত্যেককে মনে করিয়ে দিতে আপনার পরিবারকে উৎসাহ দিন। শিশুরা যে কোনো বিচ্যুতি দ্রুততম সময়ে শনাক্ত করতে পারে। তাই আপনি যে উদাহরণ তৈরি করেছেন, সেগুলো মনে রাখুন এবং একইসঙ্গে মাস্ক পরিধানের বিষয়ে পরামর্শ মেনে চলতে পরিবারের চারপাশের আত্মীয় ও বন্ধুবান্ধবকে উৎসাহ দিন।

ইউনিসেফের তথ্য অবলম্বনে

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..