বাণিজ্য সংবাদ শিল্প-বাণিজ্য

যশোরে পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৪০ টাকা কমেছে

প্রতিনিধি, যশোর: অস্বাভাবিকভাবে দাম বাড়ায় যশোরের বাজারে পেঁয়াজ বেচাকেনায় ভাটা পড়েছে। ভোক্তারা মুখ ফিরিয়ে নেওয়ায় এক দিনের ব্যবধানে ৪০ টাকা দাম কমে গেছে। গতকাল যশোরের বড়বাজারে প্রতি কেজি দেশি ক্রস পেঁয়াজ খুচরা বিক্রি হয়েছে ২০০ টাকায়, এক দিন আগেও যা ছিল ২৪০ টাকা। হাট থেকে কেনা ২৩০ টাকার পেঁয়াজ বাধ্য হয়ে প্রতি কেজিতে ৭০ টাকা লোকসান দিয়ে হলেও ব্যাপারীরা আড়তদারদের মাধ্যমে পাইকারিতে বিক্রি করেন ১৬০ টাকায়।

পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে যাওয়ায় ক্রেতারা কেনার পরিমাণ অনেকখানি কমিয়ে আনেন। এ সময় বাজারে ক্রেতাদের অনেককেই ২০০ গ্রাম বা ১০০ গ্রাম পেঁয়াজ কিনতে দেখা যায়। আবার অনেকে পেঁয়াজ কেনা বাদও দিয়ে দেন। এভাবে চলতে থাকায় খুচরা এবং পাইকারি বিক্রেতারা বেকায়দায় পড়ে যান।

ব্যবসায়ীরা জানান, নতুন পেঁয়াজ উঠতে আরও ১৫-২০ দিন বাকি, তাছাড়া বিভিন্ন দেশ থেকে জাহাজ এমনকি প্লেনে করেও পেঁয়াজ আমদানি হয়ে আসছে। এসব কারণেও মজুতদাররা তাদের গুদামে আর পচনশীল পেঁয়াজ ধরে রাখতে পারছেন না।

গতকাল বড়বাজারের আড়তদার জাহাঙ্গীর সরদার জানান, তিনি এদিন পাইকারিভাবে ১৬০ ও ১৭০ টাকা কেজি দরে দেশি ক্রস পেঁয়াজ বিক্রি করেন। দোকানে খুচরা বিক্রেতাদের পেঁয়াজ কেনার সংখ্যা কমে গেছে। প্রতিদিন যেখানে ৫০-৬০ বস্তা পেঁয়াজ বিক্রি হতো, সেখানে তা পাঁচ-দশ বস্তায় নেমে এসেছে। এদিকে হিলি স্থলবন্দরের খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করেছে। এক দিনের ব্যবধানে প্রকারভেদে প্রতি কেজিতে পেঁয়াজের দাম কমেছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..