সারা বাংলা

যশোর ও হিলি স্থলবন্দর থেকে গতকালও চলেনি কোনো বাস

শেয়ার বিজ ডেস্ক: নতুন সড়ক পরিবহন আইন সংস্কার দাবিতে গত ১৭ নভেম্বর যশোর থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দেন বাসচালক ও শ্রমিকরা; যা পরবর্তী সময়ে সারা দেশে শুরু হয়। এরপর কর্মবিরতিতে যান ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান চালকরা। গতকাল বৃহস্পতিবার ধর্মঘট প্রত্যাহার করলেও যশোর ও দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর থেকে কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েন যাত্রীরা। প্রতিনিধি ও সংবাদদাতার পাঠানো খবর:

যশোর ও বেনাপোল: সারা দেশে বাস চলাচলের ঘোষণা দেওয়া হলেও গতকাল বৃহস্পতিবার যশোর থেকে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। চালক ও শ্রমিকদের দাবি, তারা আশ্বস্ত হওয়ার মতো কোনো খবর পাননি; যে কারণে বাস চলাচল শুরু করেননি। বিভিন্ন মিডিয়ায় বাস চলাচলের ঘোষণা শুনে যাত্রীরা টার্মিনালে এলেও তাদের ফিরে যেতে হচ্ছে বা বিকল্প বাহনে গন্তব্যে যাচ্ছেন। যাত্রীরা জানিয়েছেন, চরম দুর্ভোগে রয়েছেন তারা। দ্রুতই এর সমাধান দরকার।

যশোর সদর উপজেলার তালবাড়িয়ার রহিম সরদার স্ত্রী ও তার তিন বছরের  মেয়েকে নিয়ে গতকাল সকাল সাড়ে ৮টায় যশোর পুরোনো টার্মিনাল এলাকায় দাঁড়িয়ে ছিলেন ঢাকায় যাবেন বলে। তার মেয়ের চিকিৎসার জন্য জরুরিভাবে ঢাকায় যেতে হবে। দূরপাল্লাসহ সব রুটে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় তারা যেতে পারেননি।

ঢাকায় যাওয়ার জন্য বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে ছিলেন সাকিলা বেগম ও নূরজাহান বেগম। কলেজের কাজে তাদের ঢাকা যাওয়া বিশেষ জরুরি। তারা যেতে না পেরে ক্ষোভ প্রকাশ করে ফিরে যান।

পরিবহন শ্রমিকরা জানান, নতুন সড়ক আইন সংশোধনসহ ১০ দফা দাবি না মানা পর্যন্ত কেউ আর গাড়ি চালাবে না। ফাঁসির দড়ি নিয়ে কেউ গাড়ি চালাতে চান না।

এ বিষয়ে যশোর জেলা পরিবহন সংস্থা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোর্তজা হোসেন জানান, তারা ঢাকায় সড়ক ফেডারেশনের সভায় আছেন। তাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে ধর্মঘটের কোনো কর্মসূচি ছিল না। কেউ গাড়ি না চালালে কিছু বলার নেই। আবার চালালেও কোনো আপত্তি নেই।

সংগঠনের সভাপতি মামুনূর রশিদ বাচ্চু জানান, ঢাকায় ফেডারেশনের সভায় আছেন। সভায় শ্রমিকদের স্বার্থসংশ্লিষ্টতা দেখা হবে আবার যাত্রী সাধারণের ভোগান্তির বিষয়টি বিবেচনায় আনা হবে। কবে নাগাদ গাড়ি চলাচল করতে পারে সে বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছুই জানাতে পারেননি তিনি।

হিলি (দিনাজপুর) : ট্রাক ও ট্যাংকলরি পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার করলেও হিলি থেকে বগুড়া ও দিনাজপুর রুটে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে দিনাজপুর ও বগুড়াগামী যাত্রীরা চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে পণ্যবাহী পরিবহন চলাচল করলেও যাত্রীবাহী পরিবহন চলাচল করেনি।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..