বিশ্ব বাণিজ্য

যুক্তরাজ্যে কর্মীদের বাড়ি থেকে কাজ করার নির্দেশ শেভরনের

শেয়ার বিজ ডেস্ক: বিশ্বব্যাপী ক্রমেই ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের কারণে পূর্ব সতর্কতা হিসেবে ৩০০ কর্মীকে বাড়ি থেকে কাজ করতে বলেছে শীর্ষস্থানীয় জ্বালানি প্রতিষ্ঠান শেভরন। তাদের লন্ডন অফিসের কর্মীদের বিষয়ে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। করোনাভাইরাস ছড়ানো একটি দেশ থেকে ফেরার পর একজন কর্মীর ফ্লু জাতীয় রোগের লক্ষণ প্রকাশ পাওয়ায় এ ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে শেভরন। খবর: বিবিসি।

ফ্লু আক্রান্ত ওই কর্মীর প্রয়োজনীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত লন্ডনের ওই অফিসের সব কর্মীকে বাড়ি থেকে কাজ করতে বলা হয়েছে। সেখানে কর্মরত কর্মীরা মূলত গ্যাস ও তেলের চলমান বাণিজ্যের কাজ দেখাশোনা করেন। করোনাভাইরাসে ইতোমধ্যে বিশ্বজুড়ে বিপুলসংখ্যক মানুষের প্রাণহানির কারণে সতর্কতা হিসেবে শেভরন এ পদক্ষেপ নিল।

কোম্পানিটি জানিয়েছে, তারা খুব নিকট থেকে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। এক্ষেত্রে বৈশ্বিক এবং স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মেনে চলা হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানের সর্বোচ্চ গুরুত্বের জায়গা হলো, কর্মীদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। তারই অংশ হিসেবে পূর্ব সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। চিকিৎসকের পরবর্তী নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত কর্মীরা বাড়ি থেকে কাজ করবেন বলে শেভরন জানিয়েছে।

করোনাভাইরাসের প্রকোপ থেকে কর্মীদের রক্ষা করতে আরও অনেক প্রতিষ্ঠান নানা ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। কর্মীদের চীন, হংকং, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া এবং সিঙ্গাপুরে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণ থেকে বিরত থাকতে কিংবা বিলম্বিত করছে বিপি। এছাড়া আক্রান্ত দেশ থেকে কর্মীদের মধ্যে এ জাতীয় লক্ষণ দেখা দিলে কাজে না আসার জন্য বলে দিচ্ছে। বিনিয়োগ ব্যাংক গোল্ডম্যান স্যাকস আক্রান্ত দেশ থেকে ফেরা কর্মীদের স্বেচ্ছায় বিচ্ছিন্ন থাকতে বলেছে। এমনকি কোনো লক্ষণ দেখা না গেলেও এ পন্থা গ্রহণের অনুরোধ করেছে।

চীন থেকে ছড়ানো করোনাভাইরাস ইতোমধ্যে যুক্তরাজ্যসহ বিশ্বের অনেক দেশে শনাক্ত হয়েছে। ৪৪ হাজার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর তথ্য পর্যালোচনা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) জানিয়েছে, ৮১ শতাংশের মধ্যে রোগের হালকা উপসর্গ রয়েছে। আর ১৪ শতাংশের মধ্যে এ ভাইরাসের তীব্র উপসর্গ রয়েছে। বাকি পাঁচ শতাংশের অবস্থা সংকটজন বলে ডব্লিউএইচও জানিয়েছে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..