বিশ্ব সংবাদ

যুক্তরাষ্ট্রের বাজেটে ঘাটতি তিন লাখ ১০ হাজার কোটি ডলার

শেয়ার বিজ ডেস্ক : সাম্প্রতিক সময়ে করোনাভাইরাস মহামারির কারণে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতিতে ধস নেমে এসেছে। এ বছর দেশটির ফেডারেল বাজেটে ঘাটতি তিন দশমিক এক ট্রিলিয়ন ডলার বা তিন লাখ ১০ হাজার কোটি ডলারে দাঁড়িয়েছে। গত বছরের ঘাটতির তুলনায় এটি ২১৮ শতাংশ বেশি। খবর: রয়টার্স।

সেপ্টেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থবছর শেষ হয়েছে। গত শুক্রবার মার্কিন প্রশাসন জানিয়েছে, এর আগের অর্থবছরে যে পরিমাণ বাজেট ঘাটতি হয়েছিল এবারের এ ঘাটতি দ্বিগুণেরও বেশি।  আগের অর্থবছরের বাজেট ঘাটতি ছিল ৯৮৪ বিলিয়ন ডলার। এদিকে মার্কিন অর্থ মন্ত্রণালয়ের হিসাব অনুসারে, এদিকে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের ঋণ এখন ২৭ ট্রিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে। যেখানে যুক্তরাষ্ট্রের মোট জাতীয় সম্পদের অর্থমূল্য ২০ ট্রিলিয়ন ডলার। 

মার্কিন অর্থমন্ত্রী স্টিভেন মুচিন দাবি করেন, করোনাভাইরাসের মহামারি মোকাবেলা করতে গিয়ে বাজেট ঘাটতির পরিমাণ অনেক বেড়েছে। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে শ্রমিক, সাধারণ পরিবার, ব্যবসায়ী এবং অর্থনীতিকে চালু রাখার বিষয়ে সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এজন্য এ ঋণ বেড়েছে বলে তিনি ইঙ্গিত দেন।

গত ৩১ ডিসেম্বর প্রথম চীনের হুবেই প্রদেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ দেখা দেয়। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্বের ২১৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাস। বর্তমানে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির ৫০টি অঙ্গরাজ্যেই করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে। করোনা মহামারির কারণে দেশটিতে ভয়াবহ বিপর্যয় নেমে এসেছে। তবে শুধু যুক্তরাষ্ট্রই নয়, করোনার কারণে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশের অর্থনীতিতেই ধস নেমে এসেছে।

বৈশ্বিক মহামারি শুরু হওয়ার আগে থেকেই অন্তত এক ট্রিলিয়ন ডলার বাজেট ঘাটতির পথে ছিল যুক্তরাষ্ট্র। পরে করোনার ধাক্কায় রীতিমতো বিস্ফোরণ ঘটে এ সংকটের। গত এপ্রিল-জুনে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি সংকুচিত হয়েছে ৩০ শতাংশেরও বেশি, যা তাদের ইতিহাসে প্রান্তিকের হিসাবে সবচেয়ে বড় অধঃপতন।

মার্কিন রাজস্ব বিভাগ জানিয়েছে, চলতি অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসেই যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় সরকার ছয় ট্রিলিয়ন ডলারের বেশি ব্যয় করেছে। এর মধ্যে দুই ট্রিলিয়ন

ডলারই ছিল করোনা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচিতে। ফলে রেকর্ড বাজেট ঘাটতির মুখে পড়েছে বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতির দেশটি, যা তাদের আগের রেকর্ড ২০০৯ সালের পুরো অর্থবছরের ঘাটতির চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ বেশি। ওই সময় ২০০৮ সালের মহামন্দার ধাক্কা কাটাতে গিয়ে ধুঁকছিল যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি।

বিভিন্ন জরিপের তথ্যে দেখা গেছে, দেশটিতে চাকরিচ্যুতি ও ব্যবসা বন্ধের পরিমাণ দিন দিন বেড়েই চলেছে। সেখানে অন্তত তিন কোটি মানুষ সরকারের কাছ থেকে কোনো না কোনো ধরনের বেকারত্ব সুবিধা নিচ্ছেন। দেশটির শ্রম মন্ত্রণালয় বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের মোট শ্রমশক্তির প্রায় ২০ শতাংশ বেকারত্বের সুবিধার বাইরে রয়েছেন। এর কারণে অনেক রিপাবলিকানই চাচ্ছেন আরও বেশি প্রণোদনা প্যাকেজ দেওয়া হোক। তবে ডেমোক্র্যাটরা এর সমালোচনা করছেন।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..