Print Date & Time : 13 April 2021 Tuesday 6:28 pm

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজ্যে ট্রাম্প সমর্থকদের সশস্ত্র মহড়া

প্রকাশ: January 18, 2021 সময়- 09:16 pm

শেয়ার বিজ ডেস্ক : কড়া নিরাপত্তার মধ্যেই স্থানীয় সময় গত রোববার যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজ্যে সমাবেশ করেছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকরা। বেশ কয়েকটি নগরীতে সশস্ত্র মহড়া দিয়েছে তারা। ওয়াশিংটন ডিসির ক্যাপিটল ভবনে সহিংস হামলার পর জো বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে নতুন করে সহিংসতার শঙ্কার মধ্যেই এসব ঘটনা ঘটছে। খবর: রয়টার্স ও বিবিসি।

টেক্সাস, ওরেগন, মিশিগান, ওহাইও এবং অন্যান্য কিছু রাজ্যের স্থানীয় ক্যাপিটল ভবনের বাইরে বিক্ষোভ হয়েছে। কিন্তু নিরাপত্তা কড়াকড়ি আরোপের ফলে বহু সরকারি ভবনেই রোববার দিনটি মোটামুটি নিরুত্তাপ কেটেছে। এফবিআই সতর্ক করে বলেছে, বুধবার নতুন প্রেসিডেন্টের অভিষেককে সামনে রেখে ফের সশস্ত্র বিক্ষোভ হতে পারে।

এ বিষয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কার্যত নীরব। টুইটার, ফেসবুকসহ প্রায় সব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাকে নিষিদ্ধ করার পর ট্রাম্পের কোনো সাড়াশব্দ পাচ্ছে না কেউ। গতকাল ট্রাকে করে তার মালপত্র হোয়াইট হাউস থেকে আরেক দফা সরিয়ে নিতে দেখা গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ২০ জানুয়ারি শপথ নিতে যাচ্ছেন জো বাইডেন। ওয়াশিংটন ডিসিতে ২৫ হাজার ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করা হয়েছে। সেখানে ট্রাম্পের কোনো সমর্থক দেখা যায়নি। হোয়াইট হাউসসংলগ্ন এলাকায় মেশিনগান হাতে ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যদের দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে। নগরীতে কড়া তল্লাশি ছাড়া প্রবেশের কোনো সুযোগই নেই। ট্রাম্প সমর্থকদের সশস্ত্র সমাবেশের হুমকির মুখে এমন ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

ভার্জিনিয়া সিটিজেন ডিফেন্স লিগ নামে রক্ষণশীল একটি গ্রূপ বলেছে, তারা ওয়াশিংটন ডিসির পাশের রাজ্য ভার্জিনিয়ায় জড়ো হচ্ছে। অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয়া তাদের অধিকার। স্থানীয় সময় সোমবার তাদের সমাবেশ করার কথা। ওয়াশিংটন ডিসির অদূরে রিচমন্ডহিল এলাকায় সশস্ত্র সমাবেশ করার হুমকি দেয়ায় সেখানে উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুলিশ বলছে, যথাযথ অনুমতি ছাড়া অস্ত্র নিয়ে এমন মহড়া রুখে দেয়া হবে।

ওহাইও অঙ্গরাজ্যের কলম্বাস নগরীতে স্টেট হাউসের সামনে ২৫ বন্দুকধারী রোববার দুপুরে সমাবেশ করে। পুলিশের কড়া পাহারার কারণে সমাবেশে কোনো উত্তেজনা বা সহিংসতা দেখা যায়নি। সমাবেশে অংশগ্রহণকারীরা বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের ব্যক্তিগত স্বাধীনতার জন্য তাদের এ সমাবেশ। এ সমাবেশের সঙ্গে ট্রাম্পের কোনো সম্পর্ক নেই।

যুক্তরাষ্ট্রের কমপক্ষে ১৯টি অঙ্গরাজ্যে ন্যাশনাল গার্ড মোতায়েন করা হয়েছে। আগামী বুধবার পর্যন্ত ন্যাশনাল গার্ড ও পুলিশের জোর নজরদারি চলবে।

৬ জানুয়ারি উত্তরসূরি জো বাইডেনের শপথ গ্রহণে থাকছেন না ট্রাম্প। তবে আগামী বুধবার সকালে ২১ বার সামরিক তোপধ্বনি আর লাল কার্পেটে হেঁটে ট্রাম্প শেষবারের মতো হোয়াইট হাউস ছাড়বেন। হোয়াইট হাউসের কর্মচারীরা এমন প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ডোনাল্ড ট্রাম্প ফ্লোরিডার মার এ লাগোতে যাওয়ার আগে সামরিক স্থাপনা জয়েন্ট অ্যান্ড্র– বেইসে প্রেসিডেন্ট হিসেবে শেষ সামরিক অভিবাদন গ্রহণ করবেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের দ্বিতীয় দফা অভিশংসন কার্যকর করার জন্য প্রস্তাবটি কখন সিনেটে উপস্থাপন করা হবে, তা এখনও নিশ্চিত নয়। ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ানোর পর তার প্রথম আইনি পদক্ষেপ হবে অভিশংসন নিয়ে আত্মপক্ষ সমর্থন করা। ট্রাম্পের প্রচার শিবিরের মুখপাত্র হোগান গিডলি এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এখনও তার অভিশংসন মোকাবিলার জন্য কোনো আইনজীবী নিয়োগ করেননি। বাইডেন-হ্যারিস প্রশাসনে হোয়াইট হাউসের কমিউনিকেশন ডিরেক্টর কেইট বেডিংফিল্ড জানিয়েছেন, পরিকল্পনা অনুযায়ী ক্যাপিটল ভবনের বাইরের পশ্চিম এলাকায় জো বাইডেনের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান আয়োজিত হবে। তিনি বলেন, ক্যাপিটল হিলের বাইরের উম্মুক্ত অঙ্গনে বাইবেলে হাত রেখে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে জো বাইডেন শপথ নেবেন বুধবার দুপুরে। কঠিন এই সময়ে উম্মুক্ত এই শপথ অনুষ্ঠান যুক্তরাষ্ট্রের জনগণ ও বিশ্বের কাছে যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্রের ইতিবাচক বার্তা দেবে বলে কেইট বেডিংফিল্ড উল্লেখ করেন।