প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

যুক্তরাষ্ট্রে এক লাখ নতুন চাকরির ঘোষণা অ্যামাজনের

শেয়ার বিজ ডেস্ক: বিশ্বের সবচেয়ে বড় অনলাইন রিটেইলার প্রতিষ্ঠান অ্যামাজন ডটকম যুক্তরাষ্ট্রে এক লাখের বেশি নতুন চাকরি সৃষ্টির ঘোষণা দিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট থেকে স্টোর কিপার পদে এসব নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে। খবর রয়টার্স।

অ্যামাজন বলছে, আগামী দেড় বছরে তারা যুক্তরাষ্ট্রে এই নতুন চাকরির সুযোগ সৃষ্টি করার পরিকল্পনা নিয়েছে। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে তারা স্থায়ী কর্মীর সংখ্যা ৫০ শতাংশ বাড়ানোর পরিকল্পনা করেছে। তবে আগামী ১৮ মাসে এ সংখ্যা বেড়ে দুই লাখ ৮০ হাজারে দাঁড়াবে।

এক বিবৃতিতে অ্যামাজন জানিয়েছে, নতুন চাকরির এই সুযোগ দেশের সব মানুষ নিতে পারবে। সব ধরনের অভিজ্ঞতা, শিক্ষা ও দক্ষতার লোকজনের জন্য চাকরির সুযোগ থাকবে।

সম্প্রতি  অ্যামাজন গুদাম তৈরিতে অনেক অর্থ ব্যয় করেছে, যাতে তারা গ্রাহকের চাহিদা পূরণে পর্যাপ্ত পণ্য মজুদ রাখতে পারে এবং অর্ডার দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দ্রুত ও কম দামে তা গ্রাহকের কাছে পৌঁছে দিতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা, টেক্সাস ও ক্যালিফোর্নিয়ায় কোম্পানিটি নতুন এ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে, যেখানে অ্যামাজনের প্রধান শপিং ক্লাব থেকে পণ্য পাঠাতে দুদিন সময় প্রয়োজন হয়। নতুন লোক নিয়োগের পর এ সময় আরও কমে আসবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ই-কমার্স মার্কেট বিশেষজ্ঞ কলিন গিলিস জানিয়েছেন, ‘অ্যামাজনের নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির পরিকল্পনা আশানুরূপ। অ্যামাজন ই-কমার্স খাতের প্রবৃদ্ধিতে প্রতিনিয়ত ভালো করছে এবং সাধারণ রিটেইলার প্রক্রিয়া থেকে প্রতিষ্ঠান ধীরে ধীরে বেরিয়ে আসছে।’

অ্যামাজন কর্তৃপক্ষ গত অক্টোবর মাসে জানিয়েছিল, তারা নর্থ আমেরিকার জনগণের চাহিদা পূরণে আরও ২৬টি প্রদর্শনী কেন্দ্র নির্মাণ করবে, যার অধিকাংশ নির্মাণাধীন।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জেফ বেজোস বলেন, ‘অ্যামাজনের প্রধান কার্যালয় থেকে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্রের কমিউনিটি পর্যায়ে নতুন এসব কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা হবে। এর আগে কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে অ্যামাজন কখনও প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করেনি।’

প্রতিষ্ঠানটির মুখপাত্র সেন স্পাইসার সাংবাদিকদের বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট দেশটির কয়েকটি প্রযুক্তি কোম্পানির প্রধানদের সঙ্গে বসেছিলেন এবং যুক্তরাষ্ট্রে তাদের কর্মসংস্থান বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন।’

নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরে ব্যবসা ও কর্মসংস্থান বাড়াতে আগেই ব্যবসায়িক নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে রেখেছেন। তার এই আহ্বানের মধ্যেই মার্কিন রিটেইল জায়ান্ট যুক্তরাষ্ট্রে এক লাখ নতুন চাকরি সৃষ্টির পরিকল্পনার কথা জানালো।

ট্রাম্পের আহ্বানে সাড়া দিয়ে অ্যামাজন নতুন চাকরি সৃষ্টির পরিকল্পনা নিয়েছে কি না, তা জানায়নি প্রতিষ্ঠানটি। তবে অ্যামাজনের সিদ্ধান্তের বিষয়ে কৃতিত্ব নিতে একটুও দেরি করেননি ট্রাম্পের মুখপাত্র শিন স্পিসার।

গত ৮ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের আগে দেশে নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির প্রতিশ্রুতি ছিল রাজনৈতিক ইস্যুর সবচেয়ে বড় বিষয়। ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনার পর ফোর্ড মোটরস কোম্পানি মেক্সিকোতে ১ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলারের ব্যবসার পরিকল্পনা করেছে। ফলে মিশিগানে কোম্পানিটির মাধ্যমে সাতশ কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।

ট্রাম্প ২০ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেবেন। দেশের ভেতরে কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও আউটসোর্সিং কমানোর অঙ্গীকার করেছেন ট্রাম্প।

গত বুধবার ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা করেছিলেন, ‘আমি এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় কর্মসংস্থান সৃষ্টিকারী হতে চলেছি।’

এ সময় ট্রাম্প অ্যামাজনের সমালোচনা করে বলেন, ‘বৃহৎ এ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটি সরকারকে ঠিকমতো ট্যাক্স দেয় না।’