বিশ্ব সংবাদ

যুক্তরাষ্ট্রে জনসনের এক ডোজের টিকা অনুমোদন

শেয়ার বিজ ডেস্ক: করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) থেকে সুরক্ষা দিতে যুক্তরাষ্ট্রের বহুজাতিক প্রতিষ্ঠান জনসন অ্যান্ড জনসনের উদ্ভাবিত এক ডোজের টিকা ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ) কর্তৃপক্ষ। এটি দেশটিতে তৃতীয় কোনো টিকার অনুমোদন। এর আগে সে দেশে ফাইজার ও মডার্নার ভ্যাকসিন অনুমোদিত হয়। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, তৃতীয় ভ্যাকসিন হিসেবে জনসনের টিকার অনুমোদন করোনার বিরুদ্ধে বাইডেন প্রশাসনের লড়াইকে বেগবান করবে। খবর: বিবিসি, গার্ডিয়ান।

করোনা প্রতিরোধে বর্তমানে যেসব টিকা ব্যবহার করা হচ্ছে, তার প্রতিটিরই দুই ডোজ করে নিতে হচ্ছে। একটিমাত্র ডোজ ব্যবহার করে করোনা থেকে সুরক্ষা পাওয়া গেলে মহামারি ঠেকানো আরও সহজ হয়ে উঠবে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষস্থানীয় বিজ্ঞানীদের পাশাপাশি ভোক্তা ও শিল্প প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে এফডিএ গঠিত ২২ সদস্যের কমিটির ভার্চুয়াল বৈঠক হয়। সেখানে জনসন অ্যান্ড জনসনের উদ্ভাবিত এক ডোজের করোনা টিকাকে কার্যকর ও নিরাপদ উল্লেখ করে তা ব্যবহারের অনুমোদন দেয় যুক্তরাষ্ট্রের একটি স্বতন্ত্র বিশেষজ্ঞ প্যানেল।

ফাইজার বা মডার্নার মতো ফ্রিজারে খুব কম তাপমাত্রায় রাখার দরকার হয় না জনসন অ্যান্ড জনসনের উদ্ভাবিত টিকা, সাধারণ ফ্রিজে রাখলেই চলে। নিজেদের টিকার পরীক্ষার ভিত্তিতে জনসন অ্যান্ড জনসনের দাবিÑযুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ব্রাজিলে এটি করোনার খুব খারাপ ধরনকে মোকাবিলা করতে পারে।

এর আগে বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসনের প্রকাশ করা নথিতে বলা হয়, বিশ্বজুড়ে ৪৪ হাজার মানুষের ওপর চালানো পরীক্ষায় দেখা গেছে, জনসন অ্যান্ড জনসনের এক ডোজের টিকাটি কভিড-১৯-এ মারাত্মক অসুস্থতা থেকে রক্ষায় ৬৬ শতাংশ কার্যকর। এছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধেও টিকাটি ৬৪ শতাংশ কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে।

এফডিএ জানিয়েছে, এ টিকাটি প্রয়োগের ২৮ দিন পর থেকে হাসপাতালে ভর্তি ঠেকাতে শতভাগ কার্যকর। এছাড়া টিকাটি গ্রহণকারীদের মধ্যে কারও মৃত্যুর ঘটনাও নেই। এছাড়া জনসন অ্যান্ড জনসন জানিয়েছে, লক্ষণহীন সংক্রমণও কমিয়ে আনতে সক্ষম এই টিকা।

এফডিএ’র পরামর্শক কমিটির সদস্য ও ফিলাডেলফিয়ার ভ্যাকসিন এডুকেশন সেন্টারের পরিচালক পল অফিট বলেন, সবচেয়ে উৎসাহব্যঞ্জক বিষয় হলো দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে টিকাটির কার্যকারিতা।

এ বছর বিশ্বব্যাপী ১০০ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন সরবরাহ করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে জনসন অ্যান্ড জনসন। যুক্তরাজ্য এরই মধ্যে এ ভ্যাকসিনের তিন কোটি ডোজ অগ্রিম অর্ডার দিয়ে রেখেছে। এই ভ্যাকসিনে সাধারণ ঠাণ্ডার ভাইরাস প্রতিরোধক ব্যবহার করা হয়েছে। প্রযুক্তি ব্যবহার করে এটিকে নিরীহ করা হয়েছে, যাতে কোনো ক্ষতি না হয়।

বিবিসি জানিয়েছে, যুক্তরাজ্য তিন কোটি, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ২০ কোটি, কানাডা তিন কোটি ৮০ লাখ এবং কোভ্যাক্স ইনিশিয়েটিভ ৫০ কোটি ডোজ জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকার অর্ডার দিয়েছে।

এক বিবৃতিতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সব নাগরিকের জন্য আনন্দের সংবাদ অবশেষে আমরা হাতের নাগালে জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা পাচ্ছি। যদিও এই সংবাদটি আমাদের জন্য উদ্যাপনের উপলক্ষ বয়ে এনেছে, তার পরও মনে রাখা প্রয়োজন, আরও বেশ কিছুদিন করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করে যেতে হবে আমাদের।

যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত ৭০ লাখ ২৮ হাজার মানুষকে টিকার আওতায় আনা হয়েছে। প্রতিদিন দেশজুড়ে টিকা দেয়া হচ্ছে সেখানে প্রায় ১০ লাখ ৩০ হাজার মানুষকে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..