বিশ্ব সংবাদ

যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো সীমান্তে সাত শরণার্থীর মৃত্যু

শেয়ার বিজ ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো সীমান্তে সাত শরণার্থীর মৃত্যু হয়েছে। গত সোমবার টেক্সাসের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মৃত্যু হওয়া ওই শরণার্থীদের মধ্যে এক নারী ও তার তিন সন্তান রয়েছেন। মেক্সিকো সীমান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টা করছিল মধ্য আমেরিকার ওই পরিবারটি। কিন্তু গ্রীষ্মের প্রচণ্ড গরমের কারণে তাদের মৃত্যু হয়েছে। খবর: রয়টার্স।
মেক্সিকোর সীমান্ত দিয়ে প্রতি বছরই লাখ লাখ শরণার্থী যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টা করে থাকে। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে শরণার্থীদের ওপর কঠোর নীতি জারি করেছে ট্রাম্প প্রশাসন। একই সঙ্গে শরণার্থী স্রোত কমাতে মেক্সিকোকে আরও কঠোর নীতি অবলম্বনের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক স্থানীয় আইনপ্রয়োগকারী কর্মকর্তা জানিয়েছেন, গত রোববার দক্ষিণ টেক্সাসের রিও গ্র্যান্ডে সীমান্তের কাছে টহলরত সীমান্তরক্ষী বাহিনীর নজরে আসেন মারা যাওয়া ওই শরণার্থীরা। ধারণা করা হচ্ছে, তারা কয়েক দিন আগেই মারা গেছেন।
ম্যাকঅ্যালেন থেকে ১৮ মাইল পূর্বে ওই এলাকাটিতে শরণার্থীরা তীব্র গরম আর পানিস্বল্পতার কারণে মারা গেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
সম্প্রতি মেক্সিকোর ভেরাক্রুজ রাজ্য থেকে মধ্য আমেরিকার প্রায় ৭৯১ শরণার্থীকে আটক করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৩৬৮ জনই শিশু, যাদের বয়স আট বছরের নিচে। ন্যাশনাল মাইগ্রেশন ইনস্টিটিউট এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, আটক শরণার্থীদের দুটি পয়েন্টে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। চারটি গাড়িতে লুকিয়ে তাদের স্থানান্তরের চেষ্টা করা হচ্ছিল। তবে বাকি আটক শরণার্থীদের বয়স কেমন, সে বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি। আটক শরণার্থীদের মধ্যে ২৭০ জনের বয়স ছয় বা সাত বছর এবং ৯৮ জনের বয়স শূন্য থেকে পাঁচ বছর। যাদের আটক করা হয়েছে তাদের মধ্যে ৪১৩ জন গুয়াতেমালার, ৩৩০ জন হন্ডুরাসের এবং ৩৯ জন সালভাদরের নাগরিক। অন্য একটি সূত্র জানিয়েছে, এই ঘটনায় ছয়জন সন্দেহভাজন মানবপাচারকারীকে আটক করা হয়েছে।

 

সর্বশেষ..