সারা বাংলা

যুবলীগকর্মী বেলাল রিমান্ডে

সাংবাদিক বুরহান হত্যা

প্রতিনিধি, নোয়াখালী: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যা মামলায় যুবলীগ কর্মী বেলাল হোসেন ওরফে পাঙ্খা বেলালকে (৩০) আটক করে তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

গতকাল সোমবার দুপুর ১টায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের (কোম্পানীগঞ্জ) বিচারক মোসলেহ উদ্দিন নিজাম এ আদেশ দেন। এর আগে বেলা ১১টার দিকে আসামিকে আদালতে হাজির করে নোয়াখালী পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

বেলা পৌনে ২টার দিকে পিবিআই পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. মোস্তাফিজুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যা মামলায় নোয়াখালী পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) বেলালকে আদালত সোপর্দ করে পাঁচ দিনের রিমান্ড চাইলে দীর্ঘ শুনানির পর আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আসামি বেলালকে আদালত থেকে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, বেলাল হোসেন উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের ইব্রাহীমের ছেলে। তিনি চরফকিরা ইউনিয়ন যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। রোববার দুপুরে বসুরহাট বাজারের হাসপাতাল রোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

১৯ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) বিকালে চাপরাশিরহাট পূর্ব বাজারে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোটভাই মেয়র কাদের মির্জার সমর্থকদের সঙ্গে সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল সমর্থকদের সংঘর্ষে সাংবাদিক বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।

বুরহান দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার ও বার্তা বাজার ডটকমের নোয়াখালী প্রতিনিধি ছিলেন। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। পরদিন শনিবার রাতে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

এর তিন দিন পর মুজাক্কিরের বাবা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক নোয়াব আলী মাস্টার কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা করেন। এতে অজ্ঞাতনামা একাধিক ব্যক্তিকে আসামি করা হয়।

চাঞ্চল্যকার এ মামলায় এই প্রথম কাউকে গ্রেপ্তার করা হলো।

মামলার তদন্তভার পাওয়ার পর পিবিআই একাধিকবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে স্থানীয় লোকজনের সাক্ষ্য নেয়। সিসি ক্যামেরার ফুটেজসহ অন্য আলামত সংগ্রহ করে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই কাদের মির্জা গত মাসে অনুষ্ঠিত তৃতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচন সামনে রেখে আলোচনায় আসেন। কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরসভায় মেয়র পদে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হয়ে ক্ষমতাসীন দলের নেতা ও সংসদ সদস্যদের বিরুদ্ধে নানা বক্তব্য দেন তিনি।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..