বিশ্ব সংবাদ

রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন প্রচারে কঠোর হচ্ছে গুগল

শেয়ার বিজ ডেস্ক: রাজনৈতিক প্রচারণামূলক বিজ্ঞাপন প্রচারে আরও কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান গুগল। প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, নির্দিষ্ট পক্ষের ব্যক্তিদের জন্য রাজনৈতিক প্রচারণার সুযোগ আর থাকছে না। প্রাথমিকভাবে আগামী সপ্তাহে যুক্তরাজ্যে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হতে যাচ্ছে। এছাড়া ধীরে ধীরে সব অঞ্চলে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হবে বলে জানিয়েছে গুগল। খবর: বিবিসি।

এ সিদ্ধান্তের আলোকে গুগল বা ইউটিউব ব্যবহারকারীদের তালিকার সঙ্গে রাজনৈতিক প্রচারকারীরা তাদের কাছে থাকা ভোটার তালিকার সঙ্গে মিলিয়ে দেখতে পারবেন না। অবশ্য আগের মতোই বয়স, লিঙ্গ পরিচয় ও আঞ্চলিক ব্যবহারকারীদের লক্ষ্য করে রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন প্রচারের সুযোগ থাকবে।

গুগল জানিয়েছে, এ ধরনের কোনো রাজনৈতিক বিজ্ঞাপনে বিভ্রান্তিকর তথ্য থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রতিষ্ঠানটির এমন সিদ্ধান্ত অবশ্য ফেসবুকের বিপরীত। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটির প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ বলেছেন, রাজনৈতিক বিজ্ঞাপনে দেওয়া তথ্যের সত্যতা যাচাই করবে না ফেসবুক।

অবশ্য আরেকটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটার আগেই সব ধরনের রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন প্রচার বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এখন গুগলের নেওয়া নতুন নীতি ফেসবুক ও টুইটারের মধ্যবর্তী ধরনের একটি সিদ্ধান্ত বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন। এক্ষেত্রে যেসব রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন বেশি ঝামেলাপূর্ণ মনে হবে সেগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে গুগল।

এক ব্লগ পোস্টে গুগল বিজ্ঞাপনের পণ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান স্কট স্পেনসার বলেছেন, রাজনৈতিক বিতর্ক ও আলোচনা গণতন্ত্রের জন্য জরুরি বলেই তারা মনে করছেন। তবে তাদের সব দাবি, পাল্টা দাবি এবং পরোক্ষ ইঙ্গিতের সত্যতা বিচার করে দেখা কারোর পক্ষে সম্ভব নয়। তিনি বলেন, এ কারণে বিভ্রান্তিকর তথ্যের জন্য বাদপড়া রাজনৈতিক বিজ্ঞাপনের সংখ্যা খুব বেশি হবে না। তবে কোনো ক্ষেত্রে নিয়মের ব্যত্যয় দেখা গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..