প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

রাজশাহীতে বৃষ্টিতে বেড়েছে শীত

 

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহীতে মঙ্গলবার ভোর থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিতে বেড়েছে শীতের তীব্রতা। এতে ভোগান্তিতে পড়ে নগরবাসীসহ খেটে খাওয়া মানুষ।

পৌষের শেষদিকে রাজশাহী অঞ্চলে চলছে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। এদিকে সোমবার রাতে আবহাওয়া ভালো থাকলেও ভোর থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি নামে। দুপুর পর্যন্ত থেমে থেমে বৃষ্টি হয়। মেঘলা আকাশে সূর্যের দেখা মেলেনি। পৌষের বৃষ্টিতে ভোগান্তি পড়ে অফিসপাড়ার মানুষ। তবে সবচেয়ে ভোগান্তিতে পড়ে প্রতিদিনের খেটে খাওয়া মানুষ। বৃষ্টির ফলে শীত বেড়ে গেছে কয়েকগুণ।

এদিকে সকাল ১০টার দিকে নগরীর রেলগেটে কাজ পাওয়ার অপেক্ষায় কোদাল আর ডালি নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন অনেকেই। তারা জানান, প্রতিদিন তারা এখানে এসে দাঁড়ান। শহরের বিভিন্ন এলাকার লোকজন দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে বিভিন্ন ধরনের কাজের জন্য তাদের নিয়ে যান। প্রতিদিন সকাল ৮টার মধ্যেই তারা কাজে লেগে পড়েন। কিন্তু বৃষ্টির কারণে সকাল ১০টা গড়িয়ে গেলেও কেউ তাদের নিতে আসেননি।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, মঙ্গলবার ভোর ৫টা ২০ মিনিটে বৃষ্টি শুরু হয়। দুপুর ১২টা পর্যন্ত এক দশমিক দুই মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। আর এদিন সকালে সর্বনি¤œ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১৩ দশমিক দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর আগে রোববার মৌসুমের সর্বনি¤œ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৯ দশমিক সাত ডিগ্রি সেলসিয়াস।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল আলম জানান, পৌষ-মাঘের মাঝামাঝিতে স্বাভাবিক বৃষ্টি হয়। আরও ক’দিন আগে বৃষ্টি হওয়ার কথা ছিল। গত বছর থেকে এই বৃষ্টি একটু পিছিয়েছে। তবে বৃষ্টির কারণে শীতও কিছুটা বাড়বে এটাই স্বাভাবিক। আলু ও মসুরের ক্ষতির আশঙ্কা বৃষ্টিতে এ অঞ্চলের আলু ও মসুরের ক্ষতির আশঙ্কা করছে কৃষি অধিদফতর।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের অতিরিক্ত উপপরিচালক (শস্য) কে জে এম আবদুল আউয়াল জানান, এ বৃষ্টিতে আলু ও মসুরের ক্ষতি হবার আশঙ্কা রয়েছে। বৃষ্টির কারণে আলুতে লেফট ব্লাইট ও মসুরে স্টেম ফাইলিয়াম রোগ হতে পারে। এজন্য কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের পক্ষ থেকে কৃষকদের সতর্ক করা হচ্ছে। তাদের বলা হয়েছে, বৃষ্টি শেষে আলু ও মসুরে ছত্রাকনাশক কীটনাশক স্প্রে করার জন্য। এছাড়া গম, ভুট্টা, আখ, পেঁয়াজ, ধানের চারাসহ অন্যান্য ফসলের জন্য উপকার হবে।