স্পোর্টস

রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে ফাইনালে নিউজিল্যান্ড

ক্রীড়া ডেস্ক: ব্যাট-বল হাতে দাপুটে পারফরম্যান্সে রীতিমতো উড়ছিল ভারত। সেমিফাইনালের লড়াইয়ে নিউজিল্যান্ড ইনিংস শেষেও সেই ধারা বজায় ছিল। কিন্তু ব্যাট হাতে নিতেই শুরু থেকে ট্রেন্ট বোল্ট আর ম্যাট হেনরির তোপে পড়ে মুহূর্তেই আকাশি জার্সিধারীদের শিবিরে জমে কালো মেঘ। পরে অবশ্য মহেন্দ্র সিং ধোনির সময়োপযোগী ব্যাটিং আর রবীন্দ্র জাদেজার ঝড়ে জমে ওঠে ম্যাচ। কিন্তু শেষ পর্যন্ত অবশ্য পারেননি তারা। তাতে নাটকীয় জয়ে ভারতের স্বপ্ন ভেঙে টানা দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বকাপ ফাইনালে জায়গা করে নেয় নিউজিল্যান্ড।
গতকাল দ্বাদশ বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনালে ভারতকে ১৮ রানে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড। ম্যানচেস্টারের মেঘাচ্ছন্ন আকাশে গত পরশু বল হাতে আগুন ঝরিয়েছিলেন জাসপ্রিত বুমরা ও ভুবনেশ্বর কুমার। গতকাল রিজার্ভ ডে’তে তারা সেই ধারা অব্যাহত রেখে নির্ধারিত ৫০ ওভারে নিউজিল্যান্ডের ৮ উইকেট তুলে নিয়ে মাত্র ২৩৯ রানে আটকে দেয়। যে কারণে ভারতের কাছে জয়টা খুব কাছেরই মনে হয়েছিল। কিন্তু ব্যাট হাতে নিতেই দলটির সেই আশায় শুরুতেই বড় ধাক্কা দেন ম্যাট হেনরি ও ট্রেন্ট বোল্ট। পরে স্যাটনার-লকি ফার্গুসনরা করেন আঁটোসাঁটো বোলিং। শেষ পর্যন্ত অবশ্য মহেন্দ্র সিং ধোনি ও রবীন্দ্র জাদেজা আশা দেখিয়েছিলেন ভারতকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পারেননি এ ডানহাতি। তাই আকাশি জার্সিধারীরা ৪৯.৩ ওভারে ২২৭ রানে গুটিয়ে যায়।
রিজার্ভ ডে’তে ভারতের সামনে মাঝারি মানের লক্ষ্য দেওয়ায় নিজেদের সমর্থক ছাড়া আর কেউ হয়তো নিউজিল্যান্ডের পক্ষে বাজি ধরেননি। শেষ পর্যন্ত তাদের হাসি উপহার দেন ট্রেন্ট বোল্ট-ম্যাট হেনরিরা। গতকাল ম্যানচেস্টারে ভারতের বিশ্বসেরা ব্যাটিং লাইনআপের বড় পরীক্ষা শুরুতেই নেন ম্যাট হেনরি। এ ডানহাতি পেসার দারুণ এক আউট সুইংয়ে উইকেটের পেছনে টম ল্যাথামের ক্যাচে ফেরান রোহিত শর্মাকে। এর কিছুক্ষণ পরই বিরাট কোহলিকে এলবিডব্ল–র ফাঁদে ফেলেন ট্রেন্ট বোল্ড। বাঁচতে অবশ্য কোহলি নিয়েছিলেন রিভিউ। কিন্তু পার পাননি। অধিনায়ক ফেরার সঙ্গে সঙ্গে লোকেশ রাহুলও হাঁটেন সাজঘরে। তাকে উইকেটের পেছনে ক্যাচে পরিণত করেন সেই হেনরিই।
৫ রানে ৩ উইকেট হারানোয় ভারতীয় ইনিংস মেরামতের চেষ্টা করেছিলেন দিনেশ কার্তিক ও হার্দিক পাণ্ডিয়া। কিন্তু চতুর্থ উইকেটের এ জুটিকে ১৯ রানের বেশি করতে দেননি হেনরি। ইনিংসের ১০ম ওভারের শেষ বলে কার্তিককে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে জিমি নিশামের দুর্দান্ত ক্যাচে ফেরান তিনি। পরে ঋশভ পান্ট ও হার্দিক পাণ্ডিয়া ৪৭ রানের জুটি গড়ে প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু তাদের সফল হতে দেননি মিশেল স্যাটনার। ৩২ রানে পান্টকে ফেরান তিনি। এ স্পিনারই আবার উইলিয়ামসনের ক্যাচে সাজঘরের পথ দেখান পাণ্ডিয়াকে। তাতে কোণঠাসা হয়ে পড়ে ভারতের ব্যাটিং লাইনআপ। ঠিক সে সময় এক প্রান্ত আগলে দলের হাল ধরেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। অন্য প্রান্তে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন রবীন্দ্র জাদেজা। ৭ম উইকেটে তারা ১১৩ বলে ১১৬ রানের জুটি গড়ে রোমাঞ্চ ছড়িয়েছিলেন। এর মধ্যে ৩৯ বলে ৩ চার ও ৩ ছয়ে জাদেজা তুলে নেন হাফ সেঞ্চুরি। শেষ পর্যন্ত তার ঝড় ৪৮তম ওভারের ৫ম বলে থামান ট্রেন্ট বোল্ট। ফেরার আগে জাদেজা করেন ৫৯ বলে সমান চারটি চার-ছয়ে ৭৭ রান। তবে নিউজিল্যান্ডকে চোখ রাঙাচ্ছিলেন ধোনি। শেষ পর্যন্ত ৪৯তম ওভারের দ্বিতীয় বলে রানআউটে কাটা পড়েন এ ডানহাতি (৭২ বলে এক চার ও এক ছয়ে ৫০)। তাতে ভারতের ফাইনালে ওঠার আশাই নিভে যায়।
নিউজিল্যান্ডের হয়ে মিচেল স্যান্টনার ১০ ওভারে ৩৪ রানে নেন দুটি উইকেট। এদিকে ম্যাট হেনরি নেন ১০ ওভারে ৩৭ রানে ৩ উইকেট। এছাড়া ট্রেন্ট বোল্ট ৪২ রানে পকেটে পোরেন দুটি উইকেট। ম্যাচসেরা হন হেনরি।
এর আগে গত পরশু ৪৬.১ ওভারে ৫ উইকেটে ২১১ রান নিয়ে গতকাল ফের ব্যাটিং শুরু করেন নিউজিল্যান্ডের দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান রস টেইলর ও টম ল্যাথাম। কিন্তু তারা এদিন মাঠে নেমেই দ্রুতই ফিরে যান। প্রথমে রান আউটে রস টেইলর কাটা পড়েন। এর পরপরই ভুবনেশ্বর কুমারের বলে সীমানায় রবীন্দ্র জাদেজার দর্শনীয় ক্যাচে সাজঘরের পথ ধরেন ল্যাথাম। টেইলর ৯০ বলে ৩ চার ও এক ছয়ে করেন ৭৪ রান। ল্যাথাম ফেরেন মাত্র ১০ রানে। শেষদিকে মিশেল স্যাটনারের ৬ বলে ৯ রানে ভর করে ভারতের সামনে চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় নিউজিল্যান্ড। শেষ পর্যন্ত এ রানই ভারতের জন্য বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়ায়।
ভারতের হয়ে ১০ ওভারে ৪৩ রানে ভুবনেশ্বর কুমার নেন ৩টি উইকেট। এদিকে বুমরাহ, জাদেজা, চাহাল ও পাণ্ডিয়া নেন একটি করে উইকেট।

 

 

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..