সারা বাংলা

লক্ষ্মীপুরে সরষেতে ৩০ কোটি টাকা আয়ের আশাবাদ

জুনায়েদ আহম্মেদ, লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুরে ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে সরষে চাষ। উৎপাদন খরচের তুলনায় লাভ বেশি হওয়ায় সরষে চাষাবাদে আগ্রহী হয়ে উঠছেন চাষিরা। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার সরষের ফলনও হয়েছে ভালো। এতে খুশি চাষিরা। এবার উৎপাদিত সরষে থেকে ৩০ কোটি টাকা আয় হবে বলে জানিয়েছে স্থানীয় কৃষি বিভাগ।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের তথ্যমতে, চলতি মৌসুমে এবার লক্ষ্মীপুরে ৪০০ হেক্টর জমিতে টরি-৭, বারি-১৪, বারি-১৫ জাতের সরষে আবাদ হয়েছে। এটা বিগত বছরের চেয়ে ১৩০ হেক্টর বেশি। চলতি মৌসুমে সরষে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৫০০ মেট্রিক টন। এর বাজারমূল্য ৩০ কোটি টাকা। তবে ফলন ভালো হওয়ায় লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি সরষে উৎপাদন হবে বলে আশাবাদ স্থানীয় কৃষি বিভাগের।

লক্ষ্মীপুরে আমন ধান কাটার পর বোরো ধান চাষাবাদে আগে মধ্যবর্তীকালীন পতিত জমিতে সরষে চাষাবাদ করে লাভবান হচ্ছেন চাষিরা।

সদর উপজেলার চররমণী মোহন ইউনিয়নের কয়েকজন সরষে চাষি জানায়, অনুকূল আবহাওয়া ও সময়মতো বীজ রোপণ করতে পারায় এবার সরষের ভালো ফলন হয়েছে। তারা জানায়, সরষে চাষাবাদে খুব বেশি কীটনাশক ওষুধ ব্যবহার করতে হয় না। ক্ষেতে পোকামাকড়ের আক্রমণও কম থাকে। এতে করে উৎপাদন খরচের তুলনায় লাভ বেশি সরষে চাষে লাভবান হচ্ছেন তারা।

সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. হাসান ইমাম জানায়, মাঠপর্যায়ে কৃষকদের সরষে চাষাবাদে উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে। আমন ও বোরো ধান চাষাবাদের মধ্যবর্তী সময়ে পতিত জমিতে স্বল্পমেয়াদি জাতের সরষে আবাদ জনপ্রিয় করতে কাজ করে যাচ্ছে কৃষি বিভাগ।

কৃষি বিভাগের পরামর্শ ও সঠিক তদারকি পেলে এ অঞ্চলে সরষে আবাদ আরও বৃদ্ধি পাবে, এমনটাই মনে করছেন কৃষকরা।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..