প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

লজ্জার ব্যাটিংয়ে পরাজয়ের শঙ্কা

নিজস্ব প্রতিবেদক: একই দৃশ্য যেন বারবার ফিরে আসে। সেই একই ছবি! ব্যর্থতার খাতা ভারী করে মাথা নিচু করে সাজঘরে ফেরার দৃশ্যটা বাংলাদেশের ক্রিকেটে সেঁটে আছে টেস্ট যুগের শুরু থেকে। এই মিরপুর টেস্টেই প্রথম ইনিংসে লজ্জায় মুখ লুকাতে হয়েছিল ব্যাটারদের। দ্বিতীয় ইনিংসেও একই পরিণতি। ২৩ রান তুলতে নেই টপ অর্ডারের চার ব্যাটার! লজ্জার ব্যাটিংয়ে হারের শঙ্কা উঁকি দিচ্ছে বাংলাদেশ ক্যাম্পে।

গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় টেস্টের চতুর্থ দিনে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা। দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংসে স্বাগতিকদের সংগ্রহ ১৩ ওভারে ৪ উইকেটে ৩৪ রান। শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংসে করা ৫০৬ রান থেকে পিছিয়ে ১০৭ রানে। এর আগে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ করেছিল ৩৬৫ রান।

প্রথম ইনিংসে ২৪ রানে ৫ উইকেট হারিয়েছিল বাংলাদেশ। তবে ভুল থেকে শিক্ষা নেয়নি স্বাগতিকরা। সেই একই ভুল ও একই পরিণতি বরণ করতে হয়েছে ইনিংসের শুরুতে। তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক ও নাজমুল হোসেন শান্ত যেন প্রথম ইনিংসের ব্যাটিংটাই করলেন! প্রথম ইনিংসে তামিম রানের খাতা খুলতে পারেননি, তবে মুমিনুল ও শান্ত এই জায়গায় এগিয়ে! মুমিনুল ৯ ও শান্ত করেছিলেন ৮ রান। আর দ্বিতীয় ইনিংসে এবারও তামিম শূন্য রানে বিদায়। তার মতো মুমিনুলও রানের খাতা খুলতে পারেননি। আর শান্ত আউট হয়েছেন ৪ রানে।

শান্তর আউটকে বরং প্রবলভাবে কাঠগড়ায় তুলতে হবে। ইনিংসের শুরুতে তাও আবার টেস্ট ম্যাচে কিনা রান আউট! যদিও প্রবীণ জয়াবিক্রমার দুর্দান্ত থ্রো প্রশংসা কুড়াবে। মাহমুদুল হাসান জয় আউট হয়েছেন ১৫ রানে। বাকি তিন জনের তুলনায় তার রান বেশি। তবে দুইবার ‘জীবন’ পাওয়ার পর ইনিংস বড় করতে না পারায় তার ‘অপরাধ’ কোনো অংশে কম নয়। বদলি ফিল্ডার কামিন্দু মেন্ডিস সিøপে ক্যাচ ছেড়েছিলেন তার। সেই সিøপেই ধরা পড়েন জয়।

বাংলাদেশের ব্যাটারদের আসা-যাওয়ার মিছিল শুরু হয়েছিল তামিমকে দিয়ে। অসিথা ফার্নান্দোর বলে সিøপে ধরা পড়েন তিনি কুশল মেন্ডিসের হাতে। বল হাত থেকে ফসকে যেতে যেতে ধরা পড়েন বাঁহাতি ওপেনার। সেই শুরু, এরপর কেবল হতাশার ছবি। শান্তর রান আউটের পর ফিরে যান মুমিনুল। বাংলাদেশ অধিনায়ক তার ফর্মহীনতা এই ইনিংসেও কাটাতে পারলেন না। ইনিংসের পর ইনিংস ব্যর্থ হচ্ছেন তিনি। মাত্র ৪ বল খেলে রানের খাতা না খুলেই ফিরেছেন প্যাভিলিয়নে। কাসুন রাজিথার বলে খোঁচা মেরে আউট হয়েছেন তিনি। এরপর বিপদ আরও বাড়ে জয়ের আউটে।

চতুর্থ দিনের শেষ বিকালে এলোমেলো বাংলাদেশ তবু কিছুটা হলেও আশা দেখছে। কারণ, ক্রিজে আছেন প্রথম ইনিংসের দুই নায়ক মুশফিকুর রহিম (১৪*) ও লিটন দাস (১*)। পঞ্চম দিন সকালে তারা শুরু করবেন নতুনভাবে।

বাংলাদেশকে ধসিয়ে দেয়ার পথে ১২ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন অসিথা। আর একটি উইকেট শিকার রাজিথার।