স্পোর্টস

লড়াইয়ের মানসিকতাও দেখাতে পারেনি বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : প্রথম ইনিংসে ভুল ছিল অনেক। তবে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা আশায় ছিলেন দ্বিতীয় ইনিংসে সঠিক পথে ফেরার। কিন্তু ভারতীয় পেস আক্রমণে গতকাল শুরুতেই নড়ে যায় সফরকারীদের টপ অর্ডার। পরে লিটন দাস ও মেহেদী হাসান মিরাজকে নিয়ে ধীরে পথ চলেন মুশফিকুর রহিম। কিন্তু তাদের তিনজনেরই আক্ষেপ থেকে গেছে ইনিংস বড় করতে না পারার। শেষ পর্যন্ত তাই ইন্দোর টেস্টের দুদিন বাকি থাকতেই বাংলাদেশ হেরেছে ইনিংস ও ১৩০ রানের বিশাল ব্যবধানে। এ ফলই তো বলে দেয় রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যরা সিরিজের প্রথম টেস্টে লড়াইয়ের মানসিকতাও দেখাতে পারেননি। 

গতকাল ভারতের চেয়ে ৩৪৩ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেছিল বাংলাদেশ। সফরকারীরা হয়তো আশায় ছিল অন্তত ইনিংস পরাজয় এড়ানোর। কিন্তু ইন্দোর টেস্টের তৃতীয় দিনের ১৯.৪ ওভার খেলা বাকি থাকতেই টাইগাররা গুটিয়ে যায় ২১৩ রানে।

ভারত গতকাল আর ব্যাটিংয়ে নামেনি। আগের দিনে করা ছয় উইকেটে ৪৯৩ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেন স্বাগতিকরা। এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ মাত্র ১৫০ রানে গুটিয়ে যায়। যে কারণে ভারতকে ফের ব্যাটিংয়ে পাঠাতে টাইগারদের প্রাথমিক লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৪৩ রান। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশের দুই ওপেনার ইমরুল কায়েস ও সাদমান ইসলাম শুরুটা করেন  হতাশা দিয়ে। তারা ঠিক ছয় রান করে ফেরেন। এর কিছুক্ষণ পর মোহাম্মদ সামির বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন মুমিনুল হক। প্রথমে আম্পায়ার আউট দেননি। কিন্তু সফল রিভিউয়ে বাংলাদেশ অধিনায়ককে ফেরায় ভারত।

মিথুনও পারেননি নিজেকে মেলে ধরতে। দলের বিপদের মুহূর্তে এ ডানহাতি সামির বল উড়িয়ে মারতে গিয়ে শর্ট মিড উইকেটে ধরা পড়েন। এর কিছুক্ষণ পরই এ পেসারের শিকার হতে পারতেন মুশফিকুর রহিম। কিন্তু সিøপে তার সহজ ক্যাচ মিস করেন রোহিত শর্মা। এরপর আর পেছনে তাকাননি তিনি। মাহমুদউল্লাহ, লিটন ও মেহেদী হাসানের সঙ্গে গড়ে তোলেন জুটি। কিন্তু মাহমুদউল্লাহ সামির বলে খোঁচা মেরে সিøপে ধরা পড়েন। তবে মিরাজ এবার ভালো একটা জুটি গড়েন মুশফিকের সঙ্গে। যদিও তৃতীয় সেশনের শুরুতেই ফিরে যান তিনি উমেশের বলে বোল্ড হয়ে। এরপর আর কোনো জুটি গড়তে পারেনি বাংলাদেশ।

এক প্রান্ত আগলে রেখে দলকে টানা মুশফিক দ্রুত কিছু রানের চেষ্টায় ছিলেন। কিন্তু অশ্বিনের বলে চমৎকার ক্যাচে তাকে ফেরান চেতেশ্বর পূজারা। চার রানে জীবন পাওয়া মুশফিক ৭ চারে ফেরেন ৬৪ রান করে।

৩১ রানে চার উইকেট নিয়ে ভারতের সেরা বোলার সামি। অশ্বিন তিন উইকেট নেন ৪২ রানে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ১৫০

ভারত ১ম ইনিংস: ৪৯৩/৬ (ডি.)

বাংলাদেশ ২য় ইনিংস: ৬৯.২ ওভারে ২১৩ (সাদমান ৬, ইমরুল ৬, মুমিনুল ৯, মিঠুন ১৮, মুশফিক ৬৪, মাহমুদউল্লাহ ১৫, লিটন ৩৫, মিরাজ ৩৮, তাইজুল ৬, আবু জায়েদ ৪, ইবাদত ১*; ইশান্ত ১১-৩-৩১-১, উমেশ ১৪-১-৫১-২, সামি ১৬-৭-৩১-৪, জাদেজা ১৪-২-৪৭-০, অশ্বিন ১৪.২-৬-৪২-৩)

ফল: ভারত ইনিংস ও ১৩০ রানে জয়ী

সিরিজ: দুই ম্যাচ সিরিজে ভারত ১-০-এ এগিয়ে

ম্যাচসেরা: মায়াঙ্ক আগারওয়াল।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..