প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

লভ্যাংশ দিতে ব্যর্থ পিপলস লিজিং

নিজস্ব প্রতিবেদক: ৩১ ডিসেম্বর ২০১৬ পর্যন্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিসেস লিমিটেড বিনিয়োগকারীদের কোনো লভ্যাংশ দিচ্ছে না। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে,  ওই সময় শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে এক টাকা ৭৩ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) ১০ টাকা ৮৮ পয়সা। আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ৯টায় রাওয়া কনভেনশন হল, তৃতীয় তলা, মহাখালী, ঢাকায় বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগমী ৭ আগস্ট।

‘জেড’ ক্যাটাগরির এ কোম্পানিটি ২০০৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৫ সমাপ্ত হিসাববছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিনিয়োগকারীদের কোনো লভ্যাংশ দেয়নি। ওই সময় শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে তিন টাকা তিন পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) হয়েছে ১২ টাকা ৯৮ পয়সা। কর-পরবর্তী লোকসান করেছে ৮৩ কোটি ৯৬ লাখ টাকা।

২০১৪ সালে সমাপ্ত হিসাববছরে ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে, যা আগের বছরের সমান। ওই সময় কোম্পানির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৭৬ পয়সা এবং এনএভি ছিল ১৭ টাকা ৫২ পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল ৯৫ পয়সা ও ১৮ টাকা ৪৪ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ১৯ কোটি ৬৭ লাখ টাকা, যা আগের বছর ছিল ২২ কোটি ৩৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

৫০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ২৮৫ কোটি ৪৪ লাখ ১০ হাজার টাকা। রিজার্ভে ঘাটতির পরিমাণ ১৬ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। গতকাল ৩৮ লাখ ৯৭ হাজার ১০৩টি শেয়ার মোট এক হাজার ২০ বার লেনদেন হয়। এর বাজারদর ছিল চার কোটি ২৪ লাখ ১০ হাজার টাকা। শেয়ারদর দুই দশমিক ৮৩ শতাংশ বা ৩০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ১০ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১০ টাকা ৮০ পয়সা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনি¤œ ১০ টাকা ১০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১১ টাকা ৩০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ছয় টাকা ৫০ পয়সা থেকে ১১ টাকা ৭০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।