দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

লেনদেনের অর্ধেকই বিমা খাতের

মুস্তাফিজুর রহমান নাহিদ: সম্প্রতি পুঁজিবাজারে একচেটিয়া আধিপত্য বিস্তার করছে বিমা খাতের কোম্পানি। দিন যত যাচ্ছে, ততই বাড়ছে তালিকাভুক্ত বিমা কোম্পানির শেয়ার চাহিদা, যার জের ধরে প্রতিনিয়তই মোট লেনদেনে এই খাতের অংশগ্রহণ বাড়ছে। গতকালও এর বিপরীত হয়নি। গতকাল মোট লেনদেনের প্রায় অর্ধেকই ছিল এই খাতের।

গতকালের বাজার বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, দিন শেষে মোট লেনদেনে এই খাতের অবদান ছিল ৪৫ দশমিক ৪৮ শতাংশ। এর আগের কার্যদিবসেও এই খাতের অবদান ছিল ৩৯ শতাংশ। এর আগের কার্যদিবসেও লেনদেনে এই খাতের ৩৮ শতাংশ অবদান দেখতে পাওয়া যায়।

গতকালের লেনদেন চিত্রে দেখা যায়, আগের দিনের ধারাবাহিকতা গতকাল সারা দিনই বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ ছিল বিমা খাতের শেয়ারে। এই খাত থেকে গতকাল অনেক বিনিয়োগকারী মুনাফা তুলেছেন। পাশাপাশি খাতটি ভবিষ্যতে আরও ভালো করবেÑএমন ভেবে বেশি দরে শেয়ার কিনেছেন ক্রেতারা। তবে শেষ দিকে তুলনামূলকভাবে বিক্রেতা বেড়ে যাওয়ায় এই খাতের কিছু কোম্পানির শেয়ারদর কমতে দেখা যায়।

এদিকে আগের কার্যদিবসের মতো গতকালও বিমা ছাড়া মাত্র দুটি খাত মোট লেনদেনে ১০ শতাংশের বেশি অবদান রাখতে সক্ষম হয়। এই খাত দুটি আর্থিক এবং বস্ত্র। এর মধ্যে আর্থিক খাতের মোট লেনদেনে অবদান ছিল ১২ শতাংশ। আর দিন শেষে মোট লেনদেনে বস্ত্র খাতের অবদান দেখতে পাওয়া যায় ১০ শতাংশ। এছাড়া বাকি খাতগুলোর শেয়ারে তেমন আগ্রহ ছিল না বিনিয়োগকারীদের।

এদিকে গতকাল ডিএসইর প্রধান লেনদেন বাড়লেও দিন শেষে সূচক আগের দিনের চেয়ে সামান্য কমতে দেখা গেছে। গতকাল ডিএসইতে মোট লেনদেন হয় এক হাজার ৩৪ কোটি টাকার শেয়ার এবং ইউনিট। যার মধ্যে ১৬ কোটি টাকা ছিল ব্লক মার্কেটের লেনদেন। এদিন ব্লক মার্কেটে মোট ২৮টি কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি শেয়ার লেনদেন হয় সিটি ব্যাংকের। এ কোম্পানিটি গতকাল মোট চার কোটি ৩৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন করে। অন্যদিকে গতকাল দিন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক সাত পয়েন্ট কমতে দেখা গেছে। দিন শেষে সূচক স্থির হয়েছে চার হাজার ৯৭১ পয়েন্টে।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..