প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

লেনদেনের শীর্ষে ইফাদ অটোস  

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: সদ্যসমাপ্ত সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেনের শীর্ষ অবস্থানে ছিল প্রকৌশল খাতের কোম্পানি ইফাদ অটোস লিমিটেড। এদিকে সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর মোট দুই হাজার ৮৬৮ কোটি তিন লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, চলতি মাসের তৃতীয় সপ্তাহে ইফাদের দৈনিক গড়ে প্রায় ২৪ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আর পুরো সপ্তাহে এ কোম্পানির মোট শেয়ার লেনদেন দাঁড়িয়েছে ১২৭ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে (বৃহস্পতিবার) ডিএসইতে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ার ১২৫ টাকা ১০ পয়সা দরে লেনদেন হয়েছে। শীর্ষে আসা ইফাদ অটোস লিমিটেডের দখলে ছিল ডিএসইর মোট লেনদেনের চার দশমিক ৪৫ শতাংশ। কোম্পানিটির শেয়ারদর কমেছে ২১ দশমিক ৬৯ শতাংশ।

২০১৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটি বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে অবস্থান করেছে। ২০১৬ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরে ১৩ শতাংশ নগদ ও চার শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। এ সময়ে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে তিন টাকা ৯৮ পয়সা ও শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) ৩৩ টাকা ৫৮ পয়সা। ওই সময় কর-পরবর্তী মুনাফা করেছে ৫৯ কোটি ৫১ লাখ ৪০ হাজার টাকা। ইফাদ অটোসের মোট শেয়ারের ৬২ দশমিক ৭৭ শতাংশই তিন উদ্যোক্তা পরিচালকের হাতে রয়েছে। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১৯ দশমিক ৩২ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ১৭ দশমিক ৯১ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

লেনদেনের শীর্ষ কোম্পানির তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড। এ সময়ে ডিএসইর মোট লেনদেনের তিন দশমিক ৩৭ শতাংশ ছিল এ কোম্পানির দখলে। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির লেনদেনের পরিমাণ ছিল ১০৭ কোটি দুই লাখ ৪৭ হাজার টাকা। দর কমেছে দুই দশমিক ৪৯ শতাংশ।

তালিকার তৃতীয় অবস্থানে ছিল ব্র্যাক ব্যাংক। ডিএসইর মোট লেনদেনের তিন দশমিক ৩৮ শতাংশ এ কোম্পানির দখলে ছিল। এ সময়ে কোম্পানিটির লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৯৭ কোটি তিন লাখ ২৬ হাজার টাকা। দর কমেছে এক দশমিক ৫১ শতাংশ।

লেনদেনের শীর্ষে থাকা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে তথ্য-প্রযুক্তি খাতের আমরা নেটওয়ার্কসের ৯২ কোটি ৮৪ লাখ ৪৪ হাজার, নন-ব্যাংকিং আর্থিক খাতের লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের ৮৯ কোটি ৭৪ লাখ ৪৭ হাজার, ব্যাংকিং খাতের সিটি ব্যাংকের ৬৭ কোটি ৪৪ লাখ ৫৪ হাজার, ট্রাস্ট ব্যাংকের ৬৭ কোটি ২৪ লাখ ২৯ হাজার, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের ৬৩ কোটি ৬৩ লাখ ৫০ হাজার, স্কয়ার ফার্মাসিটিউক্যালসের ৬৩ কোটি ৫৭ লাখ ৫১ হাজার ও আইডিএলসি ফাইন্যান্সের ৬২ কোটি নয় লাখ ৫৬ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।