দিনের খবর প্রথম পাতা

লেনদেনে আর্থিক ও বস্ত্র খাতের আধিপত্য

মুস্তাফিজুর রহমান নাহিদ: সূচকের বড় পতনের পরের দিন গতকাল আবার ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার। দেখা গেছে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা। দিন শেষে ৫৬ পয়েন্ট বেড়ে সূচক স্থির হয়েছে সাত হাজার ১৯৬ পয়েন্টে। একইভাবে বেড়েছে লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর।

গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন হওয়া কোম্পানির মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৭টির। পক্ষান্তরে ১৫৩টি কোম্পানির দর হ্রাস পায় এবং ৫৫টির দর অপরিবর্তিত ছিল।

গতকালের বাজার বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, এদিন লেনদেনে আধিপত্য দেখিয়েছে আর্থিক ও বস্ত্র খাত। এ দুই খাত মোট লেনদেনে ৩০ শতাংশ অবদান রাখতে সমর্থ হয়। বাড়তে দেখা যায় এ দুই খাতের বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর। এদিন মোট লেনদেনে আর্থিক খাতের একক অবদান দেখা যায় ১৯ শতাংশ। লেনদেনে এর পরের অবস্থানে দেখা যায় বস্ত্র খাতকে। এটি মোট লেনদেনে ১১ শতাংশ অবদান রাখে।

অন্যদিকে গতকাল মোট লেনদেনে তৃতীয় অবস্থানে ছিল ওষুধ ও রসায়ন খাত। এ খাতটি মোট লেনদেনে ১০ শতাংশ অবদান রাখতে সক্ষম হয়।  এছাড়া লেনদেনে প্রকৌশল, ব্যাংক, বিবিধ ও খাদ্য খাত উল্লেখযোগ্য অবদান রাখে।

গতকাল ডিএসইতে মোট দুই হাজার ৯৭ কোটি টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট কেনাবেচা হতে দেখা যায়। এর মধ্যে ব্লক মার্কেটে লেনদেন ছিল ৭৫ কোটি টাকার বেশি। গতকাল এ মার্কেটে মোট ৫০টি কোম্পানি লেনদেনে অংশ নিয়েছে। জানা গেছে, কোম্পানিগুলোর এক কোটি ছয় লাখ ৮০ হাজার ৮৯৯টি শেয়ার ৮৫ বার হাত বদলের মাধ্যমে ৭৫ কোটি ২৮ লাখ ৬১ হাজার টাকায় লেনদেন হয়েছে।

এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সবচেয়ে বেশি, অর্থাৎ ২২ কোটি ৪৫ লাখ ২৫ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে জেনেক্সের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৭ কোটি ২৫ লাখ টাকা ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ ৯ কোটি ৪০ লাখ ৭৬ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে ইসলামিক ফাইন্যান্সের।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..