দিনের খবর প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

লেনদেনে তিন খাতের অবদান ৭৫ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে সন্তোষজনক লেনদেনের ধারা অব্যাহত রয়েছে। গতকাল পর্যন্ত টানা তিন কার্যদিবস ডিএসইতে ৬০০ কোটি টাকার বেশি লেনদেন হতে দেখা যায়। তিন দিনের মধ্যে গতকালই ছিল সর্বোচ্চ লেনদেন। এদিন লেনদেন ৭০০ কোটি টাকা অতিক্রম করে।

গতকাল দিন শেষে ডিএসইতে মোট ৭১৮ কোটি টাকার শেয়ার এবং মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট বেচাকেনা হয়। তবে যে লেনদেন হয়েছে তাতে খাতভিত্তিক লেনদেনের দাপট ছিল বেশি। বিনিয়োগকারীরা মেতে ছিলেন তিন খাতের শেয়ারে।

গতকালের বাজার বিশ্লেষণ করলে দেখা যায় এদিন বিমা, ওষুধ ও রসায়ন এবং প্রকৌশল খাতের আধিপত্য ছিল। মোট লেনদেনের ৭৫ শতাংশ ছিল এই খাতের কোম্পানির অবদান। এই ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি এগিয়ে ছিল বিমা খাত। অন্যান্য কার্যদিবসের মতো গতকালও এই খাতের শেয়ারের সবচেয়ে বেশি আগ্রহ দেখা গেছে বিনিয়োগকারীদের। মোট লেনদেনে এই খাতের অবদান ছিল প্রায় ৩৩ শতাংশ। বিনিয়োগকারীরা গতকাল এ খাতের শেয়ার সবচেয়ে বেশি দরে কিনেছেন। যে কারণে লেনদেন শেষে এই খাতের বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর বাড়তে দেখা গেছে।

এদিকে গতকাল লেনদেনে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল প্রকৌশল খাত। বিমা খাতের মতো গতকাল এই খাতের শেয়ারেও বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ দেখা গেছে। প্রায় সারা দিনই এই খাতের বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারে বিক্রেতার চেয়ে ক্রেতার সংখ্যা বেশি ছিল। ফলে উচ্চ দরেই শেয়ার কিনতে হয়েছে ক্রেতাদের। দিন শেষে মোট লেনদেনে এই খাতের কোম্পানির অবদান ছিল ২১ শতাংশ।

এর পরের ছিল ওষুধ ও রসায়ন খাত। অন্যান্য দিনের মতো গতকালও এ খাতের শেয়ারের চাহিদা দেখা গেছে। দিন শেষে মোট লেনদেনে এই খাতের কোম্পানির অংশগ্রহণ ছিল প্রায় ২১ শতাংশ। এছাড়া অন্যান্য খাতের শেয়ারের আধিপত্য লক্ষ করা যায়নি। ওইসব খাতের লেনদেন হয়েছে কোম্পানি কেন্দ্রিক।

অন্যদিকে গতকাল লেনদেন বৃদ্ধির পাশাপাশি ডিএসইর প্রধান সূচক বৃদ্ধি পেতে দেখা গেছে। গতকাল দিন শেষে প্রধান সূচক বাড়ে আট পয়েন্ট। লেনদেন শেষে সূচকের অবস্থান দাঁড়ায় ৪ হাজার ৩০৭ পয়েন্টে।

এদিকে আগের কার্যদিবসের মতো গতকালও ব্লক মার্কেটে লেনদেনের দাপট অনেক কমে গেছে। গতকাল এই মার্কেটে মোট ২৯ কোটি টাকার শেয়ার এবং মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট কেনাবেচা হতে দেখা যায়।

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..