লেনদেনে ৩৭ শতাংশ তিন খাতের

মুস্তাফিজুর রহমান নাহিদ: সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে সূচকের নিম্নমুখী প্রবণতা দিয়ে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেন শেষ হয়েছে। দিন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক কমতে দেখা গেছে ৩৬ পয়েন্ট। লেনদেন শেষে সূচকের অবস্থান হয় সাত হাজার ১৯১ পয়েন্ট। একই ভাবে কমতে দেখা যায়, লেনদেন হওয়া সিংহভাহ কোম্পানির শেয়ারদর। গতকাল লেনদেন হওয়া কোম্পানির মধ্যে দর বাড়ে ১০৬টির। পক্ষান্তরে ২৪৪টির দর কমে এবং অপরিবর্তিত দেখা যায় ২৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারদর।

এদিকে গতকাল মোট লেনদেনের ৩৭ শতাংশ ছিল তিন খাতের। খাত গুলো হচ্ছেÑআর্থিক, বিমা এবং ওষুধ ও রসায়ন খাত। এর মধ্যে শীর্ষে ছিল আর্থিক খাত। এটি মোট লেনদেনে ১৪ শতাংশ অবদান রাখতে সমর্থ হয়। পরের অবস্থানে ছিল প্রকৌশল খাত। মোট লেনদেনে এ খাতের একক অবদান ছিল ১২ শতাংশ। লেনদেনে এর পরের অবস্থানে ছিল বস্ত্র খাত। এ খাতটি মোট লেনদেনে প্রায় ১১ শতাংশ অবদান রাখে। এছাড়া মোট লেনদেনে বিবিধ খাত, এবং বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত সন্তোষজনক অবদান রাখতে সক্ষম হয়।

এদিকে গতকাল সূচক পতনের দিন মধ্যমমানের দর রয়েছে এমন শেয়ারের দিকে বিনিয়োগকারীদের বেশি নজর দেখা যায়। এদিন ৫০ থেকে ১০০ টাকা দর রয়েছে এমন শেয়ারে আগ্রহ দেখা যায়, প্রায় ৪৮ শতাংশ বিনিয়োগকারীর।

অন্যদিকে গতকাল ডিএসইতে মোট দুই হাজার ৩৩ কোটি টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট কেনাবেচা হয়। এর মধ্যে ব্লক মার্কেটে লেনদেন ছিল প্রায় ৫৯ কোটি টাকা। এ মার্কেটে মোট ৫৯টি কোম্পানি লেনদেনে  অংশ নেয়।

জানা গেছে, কোম্পানিগুলোর এক কোটি ৫০ লাখ ৫৯ হাজার ৬৩টি শেয়ার ৯৫ বার হাত বদলের মাধ্যমে ৫৮ কোটি ৯৩ লাখ ২২ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্থাৎ ১৯ কোটি ৭৫ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে এনভয় টেক্সটাইলের। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১০ কোটি ৬২ লাখ ১০ হাজার টাকা আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ তিন কোটি ৬৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে স্কয়ার ফার্মার।

সর্বশেষ..