প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

লেনদেন ও দর বৃদ্ধিতে একক আধিপত্য বিমা খাতের

 

রুবাইয়াত রিক্তা: ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল সূচকের মিশ্র প্রবণতায় লেনদেন হয়েছে। প্রধান সূচক ও ডিএস ৩০ সূচক কমলেও খুব সামান্য বেড়েছে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক। গতকাল বেশিরভাগ শেয়ারের দর বাড়লেও সূচকে ছিল নেতিবাচক প্রবণতা। এর কারণ গতকাল দর বৃদ্ধি পাওয়া বেশিরভাগ কোম্পানি ছিল ছোট মূলধনি। ডিএসইতে লেনদেন ও দর বৃদ্ধিতে একক আধিপত্য ছিল বিমা খাতের। আর কোনো খাতই তার আশেপাশে দাঁড়াতে পারেনি। এ খাতে লেনদেন হয় মোট লেনদেনের এক চতুর্থাংশের বেশি। বিমার পাশাপাশি গতকাল প্রকৌশল খাতেও লেনদেন কিছুটা বেড়েছে। অন্যদিকে লেনদেন কমেছে ওষুধ ও রসায়ন খাতে। বাকি খাতগুলোতে নামমাত্র লেনদেন হয়েছে।
ছয় শতাংশ বেড়ে বিমা খাতে লেনদেন হয় মোট লেনদেনের ২৮ শতাংশ বা প্রায় ৮৫ কোটি টাকা। এ খাতে ৮৫ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। প্রায় ১০ কোটি টাকা লেনদেন হয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে আসে সোনারবাংলা ইন্স্যুরেন্স। শেয়ারটির দর ৬০ পয়সা বেড়েছে। এছাড়া ইস্টার্ন ইন্স্যুরেন্সের প্রায় সাড়ে ছয় কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে এক টাকা ৯০ পয়সা। রূপালী ইন্স্যুরেন্সের প্রায় ছয় কোটি টাকা লেনদেন হলেও দর অপরিবর্তিত ছিল। দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালিকায় উঠে আসে বিমা খাতের ছয় কোম্পানি। এসব কোম্পানি হচ্ছে, পিপলস ইন্স্যুরেন্স, রিপাবলিক, ইস্টার্ন, প্রগতি এবং প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্স। তবে ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স দরপতনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ অবস্থানে ছিল। প্রকৌশল খাতে লেনদেন হয় ১৫ শতাংশ। এ খাতে ৫৪ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। মুন্নু জুট স্টাফলার্সের প্রায় ১২ কোটি টাকা লেনদেন হলেও ৭৮ টাকা দরপতন হয়। কোম্পানিটি দরপতনের শীর্ষে উঠে আসে। ন্যাশনাল টিউবসের পৌনে ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ১০ টাকা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধি ও লেনদেনে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে আসে। ওষুধ ও রসায়ন খাতে লেনদেন হয় ১০ শতাংশ। দর বেড়েছে ৪৪ শতাংশ কোম্পানির। বীকন ফার্মার ছয় কোটি টাকা লেনদেন হয়, দরপতন হয় ১০ পয়সা। স্কয়ার ফার্মার সাড়ে পাঁচ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দরপতন হয় ৫০ পয়সা। গ্রামীণফোনের প্রায় সাত কোটি টাকা লেনদেন হয়, দরপতন হয় দুই টাকা ৪০ পয়সা। আর কোনো খাতে উল্লেখযোগ্য লেনদেন হয়নি। বস্ত্র খাতে ৫২ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। ভিএফএস থ্রেডের পৌনে সাত কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৬০ পয়সা। সোয়া ছয় শতাংশ বেড়ে রেনউইক যজ্ঞেশ্বর দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালিকায় উঠে আসে। এছাড়া চামড়া শিল্প খাতের ফরচুন শুজের ও সিরামিক খাতের মুন্নু সিরামিকের সাড়ে পাঁচ কোটি টাকা করে লেনদেন হয়। মুন্নু সিরামিক দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে উঠে আসে। বাকি খাতগুলোতে দরপতনের হার বেশি ছিল।

 

সর্বশেষ..