প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

শরিয়াহ্ভিত্তিক ব্যাংকিংয়ে নজর এস আলম গ্রুপের

নিয়াজ মাহমুদ: একের পর এক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মালিকানায় বসছে এস আলম গ্রুপ। এ নিয়ে ব্যাংক পাড়ায় চলছে নানা ধরনের আলোচনা। দেশে পূর্ণাঙ্গ শরিয়াহ্ভিত্তিক ব্যাংকিং কার্যক্রম চালাচ্ছে আটটি ব্যাংক। এর মধ্যে পাঁচটি ব্যাংকেই মালিকানা রয়েছে চট্টগ্রামভিত্তিক শিল্প গ্রুপটির। সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড (এসআইবিএল) ছাড়া বাকি চারটি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে রয়েছেন আলোচিত এ শিল্প গ্রুপের একাধিক প্রতিনিধি।

পুরোপুরি শরিয়াহ্ভিত্তিক পরিচালিত আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, ইউনিয়ন ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ ও এসআইবিএলে এস আলম গ্রুপের রয়েছে উল্লেখযোগ্য শেয়ার। এছাড়া এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের মালিকানার নেতৃত্বে রয়েছে গ্রুপটি। পরিচালনা পর্ষদের থাকার পরও নিজদের অবস্থান আরও মজবুত করতে ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের প্রায় দেড় কোটি শেয়ার কেনার ঘোষণা দিয়েছেন এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাইফুল আলম মাসুদ।

জানা গেছে, দিন দিন ইসলামী ব্যাংকের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। সুদভিত্তিক ব্যাংকিংয়ের পরিবর্তে ইসলামী ধারার ব্যাংকিংয়ের প্রতি মানুষের বাড়ছে আগ্রহ। অন্যদিকে ইসলামী ব্যাংকগুলোর মুনাফাও বেশি। বিভিন্ন সময় বিশ্বব্যাপী দুই হাজার ১০০টির মতো ব্যাংক বন্ধ হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত কোনো ইসলামী ব্যাংক দেউলিয়া হয়ে যায়নি বা বন্ধ হয়নি। এসব দিক বিবেচনা করে এস আলম ইসলামী ব্যাংকিংয়ে বেশি আগ্রহী হয়েছে বলে জানা গেছে।

গ্রুপটির সঙ্গে যুক্ত এমন কয়েকজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে শেয়ার বিজকে বলেন, একাধিক ব্যবসায়িক মুনাফা নয়, সমাজ উন্নয়ন ও মানবতার সেবায় ব্যাপক ভ‚মিকা রাখতে চান সাইফুল আলম মাসুদ। ইতোমধ্যে বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামে এস আলম গ্রুপের নানা সামাজিক কার্যক্রম চলছে। এসব কার্যক্রম দেশব্যাপী প্রসারিত করতে তিনি (গ্রæপের চেয়ারম্যান) ইসলামী ব্যাংকিংয়ের প্রতি আগ্রহী হচ্ছেন।

গতকাল বুধবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে জানা গেছে, এস আলম গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইফুল আলম মাসুদ ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের এক কোটি ৪২ লাখ ৫৬ হাজার ৩৫০টি শেয়ার কেনার ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি আগামী ৩১ অক্টোবরের মধ্যে বর্তমান বাজারদরে এ শেয়ার ক্রয় সম্পন্ন করবেন। সাইফুল আলম মাসুদ ব্যাংকটির পরিচলনা পর্ষদের চেয়ারম্যান পদে রয়েছেন। এছাড়া শরিয়াহ্ভিত্তিক এ ব্যাংকটিতে রয়েছে গ্রুপটির একাধিক পরিচালক।

বাজারসংশ্লিষ্টরা এই উদ্যোক্তা পরিচালকের শেয়ার কেনার ঘোষণাকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। তাদের মতে, ব্যাংকের উদ্যোক্তা পরিচালকরা যদি তাদের ব্যাংকের শেয়ার কেনেন, তাহলে ব্যাংকটি সম্পর্কে বিনিয়োগকারীদের কাছে ভালো বার্তা যায়। আর যদি ব্যাংকের বা তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানের উদ্যোক্তা পরিচালকদের কাছ থেকে বড় আকারের শেয়ার বিক্রির ঘোষণা আসে, তাহলে প্রতিষ্ঠানটি সম্পর্কে বিনিয়োগকারীদের কাছে খারাপ বার্তা যায়। এছাড়া ব্যাংকটিতে এস আলম গ্রুপের অবস্থান আরও শক্তিশালী হলো।

শরিয়াহ্ভিত্তিক আরেক ব্যাংক আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকেও রয়েছে এস আলমের বড় ধরনের অবস্থান। পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত এ ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদে রয়েছেন গ্রুপটির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুস সামাদ লাবু। আল-আরাফাহ্ ব্যাংকে চট্টগ্রামের এ শিল্পগোষ্ঠীর বিভিন্ন নামে রয়েছে মোটা অঙ্কের শেয়ার। শরিয়াহ্ভিত্তিক পরিচালিত ইউনিয়ন ব্যাংকের কর্তৃত্বেও রয়েছে এস আলম পরিবার।

এদিকে চলতি বছরের শুরুতে দেশের বেসরকারি খাতের সবচেয়ে বড় ব্যাংক ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের পর্ষদে স্থান করে নেয় এস আলম শিল্পগোষ্ঠী। গত ৫ জানুয়ারি চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মোস্তফা আনোয়ার স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করলে নতুন চেয়ারম্যান করা হয় সাবেক সচিব আরাস্তু খানকে। তিনি এস আলম গ্রুপের মালিকানাধীন কমার্স ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান। কমার্স ব্যাংকের ৪০ ভাগ শেয়ার এস আলম গ্রুপ কিনে নেওয়ার পর আরাস্তু খানকে চেয়ারম্যান করা হয়। ইসলামী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব দেওয়া হয় ইউনিয়ন ব্যাংকের এমডি মো. আবদুল হামিদ মিঞাকে।

চলতি মাসের শুরুতে ইসলামী ব্যাংকের কুয়েত ফাইন্যান্স হাউজ তাদের ধারণ করা আট কোটি ৪৫ লাখ ৬৩ হাজার ৭৮২ শেয়ার বিক্রি করে, যা ব্যাংকটির মোট শেয়ারের সোয়া পাঁচ শতাংশ। মোটা অঙ্কের এ শেয়ারও কেনে আলোচিত ব্যবসায়িক গ্রুপ এস আলম।

সম্প্রতি শরিয়াহ্ভিত্তিক আরেক ব্যাংক সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের (এসআইবিএল) মালিকানায় এসেছে এস আলম শিল্পগোষ্ঠী। গ্রুপের প্রায় ২০টি কোম্পানি ইতোমধ্যে ব্যাংকটির প্রায় ৪১ শতাংশ শেয়ার কিনেছে বলে জানা গেছে।

এসআইবিএলে মোট শেয়ারের ৩০ শতাংশেরও বেশি শেয়ার কেনে ইউনাইটেড গ্রুপ। নানা কারণে গ্রুপটির কোনো প্রতিনিধি এসআইবিএলের পরিচালনা পর্ষদে জায়গা না পেয়ে শেয়ার বিক্রি করে এস আলম গ্রুপের কাছে। পরে চট্টগ্রামভিত্তিক এ শিল্প গ্রুপটি ব্যাংকটির প্রায় ৪১ শতাংশ শেয়ার কিনেছে। আর এতে বাজারে ব্যাংকটির শেয়ারের বড় চাহিদা তৈরি হলে এসআইবিএলের শেয়ারদর অতিমূল্যায়িত হয়ে পড়ে।

গ্লোবাল ট্রেডিং করপোরেশন, লিয়ন সিকিউরিটিজ অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, পোর্টমেন্ট সিমেন্ট, মডার্ন প্রোপারটিজ, প্রাসাদ প্যারাডাইজ রিসোর্ট, ইউনিক ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড সিকিউরিটিজ, হাসান আবাসন, প্লাটিনাম এনডোভার্স, ডায়নামিক ভেঞ্চার, রিলায়েবল এন্টারপ্রাইজ, প্যারাডাইস ইন্টারন্যাশনাল, লিডার বিজনেস এন্টারপ্রাইজ, পুষ্টি ভেজিটেবল ঘি, ইউনিটেক্স স্টিল মিলস এবং ইউনিটেক্স সিমেন্ট লিমিটেডের নামে এস আলম গ্রুপ শেয়ার কেনে। খুব শিগগিরই এসআইবিএলে পরিচালনা পর্ষদে গ্রুপটির একাধিক প্রতিনিধি স্থান করে নেবেন বলে জানা গেছে।

প্রায় ৩০ বছর আগে দেশের বৃহত্তম পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে পণ্য বেচাকেনা দিয়ে ব্যবসা শুরু করেন সাইফুল আলম মাসুদ। তারপর একে একে ঢেউটিন, সয়াবিন তেল, সিমেন্ট, চিনি, সিআর কয়েলসহ বেশ কয়েকটি শিল্প-কারখানা গড়ে তোলেন। শরিয়াহ্ভিত্তিক এসব ব্যাংক ছাড়াও একাধিক আর্থিক ও বিমা কোম্পানির মালিকানায় রয়েছেন ৫৭ বছর বয়সী এ শিল্পোদ্যোক্তা।