প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

শাবিপ্রবি গ্রিন এক্সপ্লোর সোসাইটি প্রকৃতি নিয়ে যাদের কাজ

 

স্পর্শিকা স্পর্শ: ছোট ছোট টিলায় মোড়া শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। সিলেট শহর থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে কুমারগাঁয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টির অবস্থান। সবুজে ঘেরা ৩২০ একর জায়গাজুড়ে থাকা ক্যাম্পাস দেখে মনে হয় যেন দিগন্তবিস্তৃত স্নিগ্ধতা ছড়িয়ে রয়েছে সর্বত্র। সেই প্রকৃতির সঙ্গে একাত্ম হয়ে আত্মপ্রকাশ করেছে পরিবেশবাদী সংগঠন ‘গ্রিন এক্সপ্লোর সোসাইটি’। ‘মানবতার জন্য শেখো’ মূলমন্ত্রকে সামনে রেখে ২০১২ সালের ১১ জানুয়ারি তাদের পথচলা শুরু।

প্রকৃতিপ্রেমীদের হাতে গড়েছে এ সংগঠন। শাবিপ্রবির প্রাকৃতিক পরিবেশ সুরক্ষায় তারা বদ্ধপরিকর। এর পাশাপাশি শুরু থেকে পরিবেশ বিষয়ে নানা ধরনের সচেতনতামূলক কাজ করে আসছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য সবুজ উৎসব, স্কুল পর্যায়ে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন, শাবিপ্রবির জীববৈচিত্র্য তথ্য সংগ্রহে জরিপ চালানো, পরিবেশবিষয়ক সেমিনার ও কর্মশালা আয়োজন।

শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ রক্ষা করেই তাদের দায়িত্ব শেষ নয়, পুরো দেশটাকে সবুজে পরিপূর্ণ করাটাই তাদের স্বপ্ন বলে জানান সংগঠনের সভাপতি তারেক আহমেদ অনিক।

 

ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

প্রতিটি গাছের রয়েছে আলাদা নামধাম। তা খুঁজে বের করে ১০০টি গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে নেমপ্লেট। সঙ্গে রয়েছে গাছের বিস্তারিত বর্ণনা।

সংগঠনের নিয়মিত আয়োজনের মধ্যে রয়েছে চিত্তাকর্ষক নানা প্রদর্শনীর আয়োজন। এমনই একটি আয়োজন হচ্ছে ‘সবুজ স্বপ্ন’ শীর্ষক প্রদর্শনী। এ প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছিল বিলুপ্ত ও বিলুপ্তপ্রায় বন্যপ্রাণীর আলোকচিত্র ও নানা ধরনের বৃক্ষের পরিচিতিসহ পোস্টার।

 

পরিবেশবিষয়ক সচেতনতা

পরিবেশের প্রতি সচেতনতা বাড়াতে কাজ করে যাচ্ছে গ্রিন এক্সপ্লোর সোসাইটি। সম্প্রতি সুন্দরবন রক্ষায় সিলেটে প্রতিবাদী আলোকবন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ ও পরিবেশ অক্ষু রাখতে ঝোপঝাড় উজাড় না করার অনুরোধ জানিয়ে আসছে সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে। একই সঙ্গে শিক্ষা ও প্রশাসনিক কার্যক্রমে কাগজের ব্যবহার কমানোর দাবিও জানায় সংগঠনটি।

এ ধারাবাহিকতায় সোয়াম ফরেস্ট রাতারগুল রক্ষায় গণ ই-মেইল প্রেরণ, পুনঃব্যবহারযোগ্য পণ্যের সপ্তাহব্যাপী প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে। সিলেটের বিপন্ন প্রজাতির পাখি উদ্ধার ও অবমুক্তকরণ তাদের প্রাত্যহিক কাজ।

একই সঙ্গে নিয়মিত ক্যাম্পাস পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা, নিয়মিত বৃক্ষরোপণ, বন্যপ্রাণী উদ্ধার ও সংরক্ষণ করে শাবিপ্রবি গ্রিন এক্সপ্লোর সোসাইটি।

 

উৎসব

সংগঠনটির সবচেয়ে আকর্ষণীয় আয়োজন হচ্ছে ‘গ্রিন ফেস্টিভ্যাল’। প্রতিবছর বসন্তে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন হয়। বৃক্ষমেলা, আলোকচিত্র প্রদর্শনী, পরিবেশ বিষয়ে কর্মশালার আয়োজন থাকে এ উৎসব ঘিরে।

‘গ্রিন সাস্ট ক্যাম্পেইন’-এর কথা না বললেই নয়। শাবিপ্রবির প্রাকৃতির সৌন্দর্য টিকিয়ে রাখতে এ প্রোগ্রামের আয়োজন করা হয়। বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে ‘লাভ ফর নেচার’ শিরোনামে থাকে ব্যতিক্রমধর্মী অনুষ্ঠান। ভালোবাসা শুধু দুটি হৃদয়ের মধ্যে নয়, ছড়িয়ে পড়ুক সমগ্র পৃথিবীময়। এ প্রত্যাশাকে সামনে রেখে সংগঠনের পক্ষ থেকে আয়োজন করা হয় ‘ট্রি নার্সিং ক্যাম্পেইন’।

ক্যাম্পাসভিত্তিক জরিপ কার্যক্রম সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়ার স্বপ্ন তাদের। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক বাদশাহ ফয়সাল বলেন, আমাদের গবেষণা পরিষদের তত্ত্বাবধায়নে ২০১২ থেকে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে পরিচালিত জরিপ তথ্যের ওপর ভিত্তি করে প্রকাশ হয় ‘বায়োডাইভারসিটি অব সাস্ট’ শীর্ষক গবেষণা ফলাফল। এতে উঠে আসে ৩২০ একরজুড়ে বিচরণরত নানা ধরনের উদ্ভিদ ও বন্যপ্রাণী-সম্পর্কিত অজানা অনেক তথ্য।