সুশিক্ষা

‘শিক্ষার্থীদের জন্য ই-সচেতনতা’ বিষয়ক মতবিনিময় সভা

শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেটে সুরক্ষিত রাখার জন্য প্রয়োজন সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা। আইসিটি ডিভিশনসহ বিভিন্ন অংশীদারকে সঙ্গে নিয়ে শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেটে সুরক্ষিত থাকার লক্ষ্যে একটি গাইডলাইন তৈরি করছে ডিনেট। এজন্য গত ৪ নভেম্বর ডিনেট কার্যালয়ে বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে ‘শিক্ষার্থীদের জন্য ই-সচেতনতা’ বিষয়ক একটি মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সভায় অংশ নেয় আইসিটি ডিভিশন, বেসিস, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, সমকাল, গুগল ডেভেলপার গ্রুপ ক্লাউড বাংলা, গণস্বাক্ষরতা অভিযান ও ফানুস প্রাইভেট লিমিটেডের প্রতিনিধিরা। এতে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জিয়া রহমান। বিষয় বিশেষজ্ঞ হিসেবে আলোচনায় অংশ নেন আইসিটি ডিভিশনের অতিরিক্ত সচিব মো. খাইরুল আমিন, বেসিসের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর, জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের শিক্ষক ডা. হেলাল উদ্দিন আহমেদ, ডিনেটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবিএম সিরাজুল হোসেন প্রমুখ।

সভায় শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেট সম্পর্কে সচেতনতাসহ নানা ধরনের বিষয় সম্পর্কে সতর্কতা গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়। আলোচনার মূল বিষয় ছিল শিক্ষার্থীদের জন্য ইন্টারনেটে সচেতনতাবিষয়ক একটি গাইডলাইন তৈরি করা। গাইডলাইনটিতে শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেটের নানা ঝুঁকি থেকে নিরাপদ থাকার বিষয়গুলোর সমন্বয় করা হবে।

অতিরিক্ত সচিব মো. খাইরুল আমিন বলেন, সরকারের প্রধান কাজ জনগণকে রক্ষা করা। ইন্টারনেটের দুনিয়ায় শিক্ষার্থীদের নানা অপরাধ থেকে রক্ষার এ উদ্যোগে তাই আইসিটি ডিভিশন সর্বোচ্চ সহায়তা দেবে। বেসিসের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, ইন্টারনেট সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেটের তথ্য যাচাই-বাছাই করা শিখতে হবে। কীভাবে সঠিক তথ্য অনলাইন থেকে বের করতে হয়, সে ব্যাপারে অবগত থাকতে হবে।

শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের জন্য ‘ই-সচেতনতা’ বিষয়ে একটি প্রকল্পের বাস্তবায়ন করছে ডিনেট। প্রকল্পটির মাধ্যমে ডিনেট শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সচেতনতা গড়ে তোলার জন্য যেসব কার্যক্রম বাস্তবায়ন করবে তার মধ্যে রয়েছে:

#    নবীন শিক্ষার্থীদের ইন্টারনেটে সুরক্ষিত থাকার জন্য প্রয়োজনীয় গাইডলাইন প্রস্তুতকরণ

#    ঢাকা, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী জেলার ১০০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের নিরাপদে ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর প্রশিক্ষণ

#    শিক্ষার্থীদের জন্য নিরাপদে ইন্টারনেট ব্যবহার করার বিষয়ে অনলাইনে একটি ই-শিখন ওয়েব পোর্টাল/প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা

#    শিক্ষার্থীদের সচেতন করার জন্য ২০ সিরিজের ইন্টারনেট কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা

#    প্রশিক্ষণ ও কুইজে বিজয়ী শিক্ষার্থীদের নিয়ে ঢাকায় বাংলাদেশের প্রথম নিরাপদে ইন্টারনেট ব্যবহার করার বিষয়ে একটি অলিম্পিয়াডের আয়োজন করা

প্রিন্ট করুন প্রিন্ট করুন

সর্বশেষ..